বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে পুতিনকে সতর্ক করলেন বাইডেন 

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:০৩

পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে সতর্ক করে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সিবিএস নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেছেন, এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হলে ‘যুদ্ধের চেহারা এমনভাবে বদলে যাবে যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর কখনো দেখা যায়নি।’ তবে এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহারের জবাবে যুক্তরাষ্ট্র কী ধরনের ব্যবস্থা নেবে সে বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট কিছু বলেন নি।

এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর পুতিন তার দেশের পরমাণু শক্তিকে ‘বিশেষ সতর্কাবস্থায়’ রাখার কথা ঘোষণা করেছিলেন। রুশ প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধানদের তিনি বলেছিলেন পশ্চিমা বিশ্বের আগ্রাসি মনোভাবের কারণে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সম্প্রতি রুশ সামরিক বাহিনীর নিয়ন্ত্রণ থেকে ইউক্রেনের কিছু এলাকা হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার পর পশ্চিমা দেশগুলোতে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে যে প্রেসিডেন্ট পুতিন হয়তো এখন আরও কট্টোর কৌশল গ্রহণ করতে পারেন। 

ধারণা করা হয় যে, রাশিয়ার কাছে ৫ হাজার ৯৭৭টি নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড বা পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। এই হিসাব দিয়েছে মার্কিন বিজ্ঞানীদের একটি ফেডারেশন। তারা বলছেন, এর মধ্যে প্রায় দেড় হাজার ওয়ারহেডের মেয়াদ উত্তীর্ণ এবং সেগুলো বাতিল করে দেওয়ার কথা। বাকি সাড়ে ৪ হাজার কিংবা তার চেয়েও কিছু বেশি ওয়ারহেডের মধ্যে বেশির ভাগ কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র-ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, রকেট, যা দূরপাল্লার হামলা চালাতে সক্ষম। বাকি অস্ত্রসমূহ ছোট বা কম বিধ্বংসী পারমাণবিক অস্ত্র যা স্বল্প-পাল্লা বা কম দূরত্বের—মূলত যুদ্ধক্ষেত্রে বা সাগরে ব্যবহারযোগ্য অস্ত্র। বিশ্লেষকেরা মনে করেন, এই মুহূর্তে রাশিয়ার প্রায় ১ হাজার ৫০০ ওয়ারহেড মোতায়েনকৃত অবস্থায় আছে, যার অর্থ হচ্ছে সেগুলো ক্ষেপণাস্ত্র ও বোমারু ঘাঁটি এবং সমুদ্রে সাবমেরিনে বসানো আছে। 

সিবিএসের ৬০ মিনিট অনুষ্ঠানের জন্য জো বাইডেন হোয়াইট হাউজে সাক্ষাত্কারটি দিয়েছেন। এ সময় তার কাছে জানতে চাওয়া হয় ইউক্রেনের যুদ্ধে প্রেসিডেন্ট পুতিন যদি গণ-বিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করে থাকেন তাহলে এবিষয়ে তিনি তাকে কী বলবেন। বাইডেন বলেন, ‘করবেন না, করবেন না, করবেন না’। এরপর বাইডেনের কাছে জানতে চাওয়া হয় পুতিন যদি সেই সীমারেখা অতিক্রম করেন তাহলে তার জন্য এর পরিণতি কী হতে পারে? জবাবে বাইডেন বলেন, আমি সেটা আপনাকে বলব না। তবে এর পরিণতি তো আছেই। তারা বিশ্বের কাছ থেকে আরও বেশি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে, যা তারা কল্পনাও করতে পারবে না।

ইত্তেফাক/ইআ