শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পলিথিনের ছাপড়া ঘরে হাঁটু পানিতে পাঠদান

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৫৬

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পলিথিনের ছাপড়া ঘরে হাঁটু পানিতে চলছে পাঠদান কার্যক্রম। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় ছাত্রছাত্রীর উপস্থিতি কমে যাচ্ছে। 

সরেজমিনে জানা গেছে, চিংড়াখালী ইউনিয়নের সিংজোড় গ্রামে ১৪৪নং গাজী আজিজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৪৯ সালে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হলেও ১৯৯৫ সালে সরকারিভাবে ৪ কক্ষ বিশিষ্ট নতুন ভবন নির্মিত হয়। ইতোমধ্যে ২৭ বছর অতিবাহিত হয়েছে। এরমধ্যে বিদ্যালয়টি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। প্রতিটি রুমের পলেস্তরা খসে খসে পড়ছে। ছাদের বিভিন্ন জায়গায় ফাটল ধরেছে। গ্রেড ভিম ভেঙ্গে রড দৃশ্যমান। ইতোপূর্বে পলেস্তরা খসে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। তাই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনটির বিকল্প হিসেবে বিদ্যালয় চত্বরের ছাপড়া ঘরে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা।  

বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মালেক হাওলাদার, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ওয়ালিউর রহমান গাজী, সাবেক সভাপতি সন্তোষ কুমার রায় বলেন, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে অস্থায়ী পলিথিনের ঘরে ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস হচ্ছে। একটি সাইক্লোন শেল্টার-কাম স্কুল ভবন নির্মাণ করা হলে শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধান পাশাপাশি প্রাকৃতিক দুর্যোগে বলেশ্বর নদীর তীরবর্তী ইউনিয়নের ৩ গ্রামের হাজার মানুষ আশ্রয় নিতে পারবে। তারা নতুন ভবন নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবি জানিয়েছেন। 

প্রধান শিক্ষক সমীর কুমার চক্রবর্তী বলেন, বিদ্যালয়ের শ্রেণীকক্ষের পলেস্তরা খসে পড়ছে। দুর্ঘটনার পরপরই সহকারি শিক্ষা অফিসার পরিদর্শনে এসে ঝুঁকিপূর্ণভবনে পাঠদান না করার জন্য লিখিত নির্দেশনা দিয়েছেন। বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারসহ নির্বাহী প্রকৌশলী দপ্তরে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. জালাল উদ্দিন খান বলেন, বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষণার জন্য আবেদনে সুপারিশ প্রেরণ করা হয়েছে। নতুন ভবনের জন্য তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করে অধিদপ্তরে প্রেরণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ এরকম একটি বিদ্যালয়ের বিষয়ে তিনি অবহিত নন। তবে, সরেজমিনে গিয়ে বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে নতুন ভবনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এআই