বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

‘এখনও মনের মতো চরিত্র পাইনি’

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫:৩৮

চিত্রনায়িকা নুসরাত ফারিয়া। নিয়মিত কাজ করছেন দুই বাংলার সিনেমায়। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তার একাধিক সিনেমা। সেই তালিকায় থাকা ‘অপারেশন সুন্দরবন’ দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে আজ। এই সিনেমাটির পাশাপাশি নিজের ক্যারিয়ার ভাবনাসহ ইন্ডাস্ট্রির নানা দিক নিয়ে কথা বললেন ইত্তেফাকের সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন এ এম রুবেল।

প্রায় ২ বছর পর আপনার নতুন সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। সিনেমাটি প্রসঙ্গে জানতে চাই।

নুসরাত ফারিয়া: হ্যাঁ, আজ আমার ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। এই সিনেমাটির জন্য অনেকদিন ধরে অপেক্ষা করছি। ৪ বছর কষ্ট করেছি। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থেকে বনে-জঙ্গলে শুটিং করেছি। এটি আমার ২০ তম সিনেমা হলেও মনে হচ্ছে প্রথম সিনেমা। এত এক্সাইটমেন্ট কাজ করছে যে, ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না।

নুসরাত ফারিয়া  

সিনেমাটি ঘিরে প্রত্যাশা কেমন থাকছে? 

নুসরাত ফারিয়া: শুরু থেকেই সিনেমাটি ঘিরে আমার প্রত্যাশা অনেক বেশি ছিল। তবে প্রিমিয়ারে সিনেমাটি দেখার পর আত্মত্মবিশ্বাসটাও বেড়ে গেছে। এমন একটি থ্রিলার এবং বিনোদনে ভরপুর সিনেমা মিস করা কারও ঠিক হবে না। সিনেমাটির নায়িকা হিসেবে নয়, একজন দর্শক হিসেবে সিনেমাটি দেখে আমার এমনটাই মনে হয়েছে। দর্শকদের পয়সা উসুল হবে, এটা বলতে পারি। 

অনেকেই বলছেন, চলচ্চিত্রে সুদিন ফিরছে। আপনি কেমন দেখছেন? 

নুসরাত ফারিয়া: অবশ্যই সুদিন ফিরছে। আমি খুবই ভাগ্যবান যে, এমন সময় ‘অপারেশন সুন্দরবন’ মুক্তি পাচ্ছে। তবে আমরা যেমন প্রতি শুক্রবার দর্শকদের উপহার দেওয়ার চেষ্টা করব, তেমনি দর্শকদেরও হলে আসার চর্চাটা অব্যাহত রাখতে রাখতে হবে। আমার মনে হয়, চলচ্চিত্রের সুদিন ফেরাতে দু পক্ষের সমান দায়িত্ব পক্ষের রয়েছে শুরুতে রোমান্টিক ঘরানার সিনেমায় আপনাকে বেশি দেখা গেলেও ইদানিং নানামুখী চরিত্রে দেখা মিলছে।

নুসরাত ফারিয়া

কিছুদিন আগে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল ‘মুজিব’ সিনেমাটির কিছু দৃশ্য রিটেক হবে। সংবাদটির সত্যতা কতটুকু? 

নুসরাত ফারিয়া: আমি আসলে এই বিষয়টি নিয়ে তেমন কিছু জানি না। কারণ আমার তো কোনো সিডিউল নেওয়া হয়নি বা নতুন করে কোনো শুটিং করিনি। 

আপনার কলকাতার সিনেমাগুলোর কোনো আপডেড আছে কি না?

নুসরাত ফারিয়া: হ্যাঁ, আসছে অক্টোবরে ‘ভয়’ সিনেমাটি মুক্তির কথা রয়েছে। সিনেমাটি প্রথমে কলকাতা এবং পরে বাংলাদেশে মুক্তি পাবে। ‘রকস্টার’ আগামী বছর পর্দায় আসবে। পাশাপাশি ‘বিবাহ অভিযান টু’ সিনেমাটির শুটিংও ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু করব।

নুসরাত ফারিয়া

দুই বাংলার সিনেমাতেই কাজ করছেন। দুই ইন্ডাস্ট্রির ভেতর তফাৎ কতটা দেখতে পাচ্ছেন?

নুসরাত ফারিয়া: তেমন কোনো পার্থক্য আমি দেখতে পাই না। প্রতিটি ইন্ডাস্ট্রি নিজেদের জায়গা থেকে গুছিয়ে কাজ করে। তাছাড়া আমি দুই দেশের বড় বড় প্রডাকশনের সঙ্গে কাজের সুযোগ পাওয়ায় হয়তো পার্থক্যটা সেভাবে চোখে পড়েনি। 

ওটিটি মাধ্যমটি চলচ্চিত্রের জন্য কতটা সহায়ক হবে মনে করছেন। পাশাপাশি মাধ্যমটি নিয়ে আপনার পরিকল্পনাগুলো কেমন? 

নুসরাত ফারিয়া: এর আগে ওটিটির একটি কাজ আমি করেছি। আবার যদি কখনও গল্প চরিত্র দেখে মনে হয় এটি আমার ক্যারিয়ারে ভিন্নমাত্রা যুক্ত করবে তাহলে অবশ্যই সেই হবে না সেটা। আসলে কাজটি করব। আর মাধ্যমটি চলচ্চিত্রের জন্য সহায়ক হবে কী নির্দিষ্ট করে বলা যাবে না। করোনার সময় দর্শক ওটিটি বেশি দেখলেও এখন কিন্তু আবার হলে চলে এসেছে। তবে আমি মনে করি, দুটি মাধ্যমেরই সমান দায়িত্ব রয়েছে ইডাস্তিকে বাঁচিয়ে রাখার।

নুসরাত ফারিয়া

মাঝে মাঝে গানেও নুসরাতের দেখা মেলে। নতুন গান কবে পাচ্ছে শ্রোতারা?

নুসরাত ফারিয়া: প্রায় ১ বছর ধরে নতুন গান তৈরির চেষ্টা করছি। তবে ইচ্ছে আছে ১-২ মাসের ভেতর নতুন কিছু উপহার দেওয়ার। 

অভিনয়, উপস্থাপনা নাকি সংগীতশিল্পী, কোন পরিচয়ে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন? 

নুসরাত ফারিয়া: আমার মনে হয় নুসরাত ফারিয়া পরিচয়টিই স্বাচ্ছন্দের। তবে একজন। এন্টারটেইনার বা শিল্পী হিসেবে সবগুলো মাধ্যমই নিজের মাঝে ধারণ করতে চাই।

ইত্তেফাক/বিএএফ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন