বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বাবুল আক্তারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে পিবিআই প্রধান বনজ কুমারের মামলা

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৩২

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে সাবেক এসপি বাবুল আক্তারসহ চারজনের বিরুদ্ধে ধানমন্ডি থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। 

মামলার অন্য আসামিরা হলেন-যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানকারী সাংবাদিক ইলিয়াছ হোসাইন, বাবুল আক্তারের ছোট ভাই অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান লাবু ও বাবুল আক্তারের বাবা আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া।

এ ব্যাপারে মামলার বাদী পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার বলেন, ‘মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ধানমন্ডি থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।’ 

ধানমণ্ডি থানার ওসি ইকরাম আলী মিয়া বলেন, ধানমন্ডি মডেল থানায় সন্ধ্যায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার বাদী পিবিআই প্রধান। মামলা নম্বর-২৪। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। ধানমন্ডি থানার পরিদর্শক (অপারেশন্স) রবিউল ইসলাম মামলাটি তদন্ত করবেন।

বাবুল আক্তার। ছবি: সংগৃহীত

প্রসঙ্গত, মিতু হত্যা মামলায় হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদারসহ ছয়জনের নামে মামলার আবেদন করেন আলোচিত সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার।

আবেদনে বনজ কুমার মজুমদার ছাড়া যে পাঁচজনের নাম উল্লেখ করা হয় তারা হলেন-পিবিআই চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের এসপি নাজমুল হাসান, চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটের এসপি নাঈমা সুলতানা, পিবিআইয়ের সাবেক পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা, এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের পরিদর্শক কাজী এনায়েত কবির। ৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালতে আবেদনটি করা হয়। পরে ১৯ সেপ্টেম্বর তার সেই আবেদন খারিজ করে দেয় আদালত।

২০১৬ সালের ৫ জুন ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে গিয়ে চট্টগ্রামের জিইসি মোড় এলাকায় খুন হন তৎকালীন পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু।

ইত্তেফাক/এএএম