শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

থাইল্যান্ডকে উড়িয়ে এশিয়া কাপ শুরু বাংলাদেশের

আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২২, ১২:১২

এশিয়া কাপের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ এবারের আসরের শুরুটাও করলো চ্যাম্পিয়নদের মতো করেই। ঘরের মাঠে এশিয়া কাপের অষ্টম আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে থাইল্যান্ডকে ৯ উইকেটে হারিয়ে বড় জয় তুলে নিয়ে টুর্নামেন্টে দুরন্ত সূচনা করেছে নিগার সুলতানা জ্যোতির দল।

এশিয়া কাপে মাঠে নামার আগে দুরন্ত ফর্মে ছিলো টাইগ্রেসরা। সদ্যই সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশে দেশে ফিরেছে বাংলার বাঘিনীরা। এশিয়া কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নও বাংলাদেশ। এবার শিরোপা ধরে রাখার মিশনে ফেভারিট হয়েই মাঠে নেমেছিলো জ্যোতি-সালমারা। উদ্বোধনী ম্যাচে থাইল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে ফেভারিট তকমাটার সদ্ব্যবহারই করলো টাইগ্রেসরা।

ছবি: সংগৃহীত

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গ্রাউন্ড-২'তে সকাল ৯টায় মাঠে গড়ায় নারী এশিয়া কাপের অষ্টম আসরের উদ্বোধনী ম্যাচ। টসে জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠায় থাইল্যান্ড। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে টাইগ্রেস বোলারদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে শুরু থেকেই চাপে পড়ে থাইল্যান্ড। ১৯.৪ ওভারে মাত্র ৮২ রানেই অলআউট হয়ে যায় থাইল্যান্ডের মেয়েরা।

থাইল্যান্ডের দেয়া ৮৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫৪ বল আর ৯ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা।

ছবি: ইএসপিএন ক্রিকইনফো

বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠিয়ে যেন নিজেদের কপালে বিপদই ডেকে আনে থাইল্যান্ড। ৪.৫ ওভারে  মাত্র ১৩ রানে প্রথম উইকেটের পতন। সেই পতন আর ঠেকাতে পারেননি থাই ব্যাটাররা।  নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৯.৪ ওভারে ৮২ রানেই অলআউট থাইল্যান্ড।

ছবি: ইএসপিএন ক্রিকইনফো

সানজিদা মেঘলা শুরু করেছিলেন, একে একে থাইল্যান্ডের ১০ উইকেটই তুলে নিয়েছে বাংলাদেশের স্পিনাররা। রুমানা আহমেদের ৩টির পাশাপাশি মেঘলা, নাহিদা আর সোহেলী নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। বাকি একটি উইকেট সালমা খাতুনের দখলে।

ছবি: সংগৃহীত

৮৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে দুর্দান্ত সূচনা পায় বাংলাদেশ। দুই ওপেনার মিলে মাত্র ৮ ওভারেই স্কোরবোর্ডে তুলে ফেলে ৬৯ রান। শামিমা সুলতানা তো নিজের ব্যাটকে তরবারি বানিয়ে থাইল্যান্ডের বোলারদের ওপর দিয়ে ঝড় বইয়ে দিয়েছেন শুরু থেকে। 

তবে দিনশেষে শামিমার আফসোস থাকতে পারে একটি অর্ধশতক না পাওয়া নিয়ে। ৩০ বল খেলে ১০ চারের সাহায্যে ৪৯ রান করে দলীয় ৬৯ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়ন ফিরতে হয়েছে এই ওপেনারকে।

শামিমা আউট হলেও বাংলাদেশের জয় নিয়ে সন্দেহ জাগেনি তখনও। বাকি কাজটা সেরেছেন আরেক ওপেনার ফারজানা হক আর তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক নিগার সুলাতান।

ছবি: সংগৃহীত

১১.৪ ওভারে ৯ উইকেটে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছেড়েছেন এই দুই ব্যাটার। ২ চার আর ১ ছক্কায় ২৯ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন ফারজানা। আর ১১ বলে ১ ছক্কায় ১০ রান করেন টাইগ্রেস অধিনায়ক জ্যোতি। 

ঝড়ো ব্যাটিং আর ফিল্ডিংইয়ে দুইটি ক্যাচের সুবাদে ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে শামিমা সুলতানার হাতে। 

ছবি: ইএসপিএন ক্রিকইনফো

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড: 

থাইল্যান্ড: ১৯. ৪ ওভারে ৮২/১০ ( নাত্তাকান চ্যান্থাম ২০, ফান্নিতা মায়া ২৬; রুমানা ৩-১-৯-৩, নাহিদা ৩.৪-১-১১-২)

বাংলাদেশ: ১১.৪ ওভারে ১ উইকেটে ৮৮ ( শামিমা ৪৯, ফারজানা ২৬*, জ্যোতি ১০*; থিপাচা পুত্থাওং ৪-০-২৩-১)

ফলাফল: বাংলাদেশ ৯ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা: শামিমা সুলতানা।

ইত্তেফাক/এসএস

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন