শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইউক্রেন ডিনিপ্রো নদীর তীরে অঞ্চল পুনর্দখল করেছে

আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৩:৩৫

ইউক্রেনের ৪ অঞ্চলকে সম্প্রতি নিজ দেশের অংশ হিসেবে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। অন্যদিকে, কিয়েভের বরাত দিয়ে পশ্চিমের গণমাধ্যম জানায়, তীব্র পাল্টা আক্রমণের মাধ্যমে একের পর এক রুশ অধিকৃত শহর ও গ্রাম পুনর্দখল করে নিচ্ছেন ইউক্রেনের সেনারা। মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনের বাহিনী দেশটির দক্ষিণে রুশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভেঙে ডিনিপ্রো নদীর তীরবর্তী বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল দখল করে নিয়েছে। ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর দক্ষিণাঞ্চলীয় অপারেশনাল কমান্ড দাবি করেছেন, তারা ৩১ রুশ ট্যাংক ও একটি রকেট লঞ্চার ধ্বংস করেছে।

যুদ্ধক্ষেত্রের এসব তথ্য রয়টার্স তাৎক্ষণিকভাবে যাচাই করতে পারেনি।

সোমবার (৩ অক্টোবর) সদ্য দখল করা লাইমান শহরে নিজেদের অবস্থান আরও সুসংহত করার জন্য ইউক্রেনীয় বাহিনীর বেশ কয়েকটি সামরিক পরিবহন সেখানে নিয়ে আসা হয়েছে। ডনবাস অঞ্চলে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার জন্য লাইমান গুরুত্বপূর্ণ সরবরাহ কেন্দ্র হিসেবে কাজ করছে।

প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দাবি করেছেন, বেশ কয়েকটি জনবসতিপূর্ণ এলাকা স্বাধীন হয়েছে। আরও বেশ কিছু ফ্রন্টে যুদ্ধ চলছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভিডিওর বরাত দিয়ে জানা গেছে, ইউক্রেনের ১২৮তম মাউন্টে অ্যাসল্ট ব্রিগেড ডিনিপ্রো নদীর তীরের গ্রাম মিরোলিউবিভকায় দেশটির নীল-হলুদ পতাকা উড়িয়ে পুনর্দখলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। খেরসনের আঞ্চলিক কাউন্সিল সদস্য সের্গেই খালান আরও ৪টি গ্রাম পুনর্দখলের কথা জানান।

ডিনিপ্রোর পশ্চিম উপকূলে অবস্থানরত ২৫ হাজার রুশ সেনার উপকরণ ও সরঞ্জাম সরবরাহ বন্ধ করার চেষ্টা চালাচ্ছে ইউক্রেন। ইতোমধ্যে এ অঞ্চলের মূল সেতুগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। ফলে রুশরা নদী পার হওয়ার বিকল্প ব্যবস্থা অবলম্বন করতে বাধ্য হয়েছে।

ইত্তেফাক/ডিএস/এআই