রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সাত মাস পর পাবিপ্রবি ছাত্রলীগের কমিটি

আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৩০

প্রায় সাত মাস পর পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পাবিপ্রবি) শাখা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার (৭ নভেম্বর) রাত নয়টা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এক (০১) বছরের জন্য ১৯ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। 

এতে সভাপতি করা হয়েছে ফরিদুল ইসলাম বাবুকে, সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে মো. নূরুল্লাহকে।

সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও সহ-সভাপতি হিসেবে আছেন অলক সরকার, মাহমুদুল হাসান, বি এম  জুনায়েদ, আবদুল্লাহ আল-মামুন খান, শাহেদ হোসেন, মো. বিল্লাল হোসেন, শুভ হাসান, মো. লাওহী মাহফুজ সুমন, রেদওয়ান আহমেদ অভি। 

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আছেন সাইদুজ্জামান সৌরভ, মো. রাফাত বিন ইসলাম শোভন, মো. ফাহাদ, মো. লিংকন হোসেন।

সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে আছেন, হামিদুর রহমান শামীম, মো. আশিকুজ্জামান রাব্বী, আল আমিন অন্ত, ইসান খান। এছাড়াও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে মাহমুদ কামাল তুহিনকে রাখা হয়েছে।   

দায়িত্ব পাওয়ার পর নতুন সভাপতি ফরিদুল ইসলাম বাবু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সেইসঙ্গে আগামীদিনে ঐক্যবদ্ধভাবে পাবিপ্রবি ছাত্রলীগকে আরও বেশি শক্তিশালী করার কথা জানান।

সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল্লাহ জানান, আমি ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা পোষণ করছি প্রাণপ্রিয় নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং আর দলের আপোষহীন নেতা প্রিয় আল নাহিয়ান খান জয় ভাইয়ের প্রতি। আমার ওপর দেওয়া আমানত রক্ষা করে পাবনার গণমানুষের নেতা জনাব গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি মহোদয়ের হাতকে শক্তিশালী করতে আমি এবং আমার সভাপতি ফরিদুল ইসলাম বাবু ভাই মিলে ঐক্যবদ্ধ থাকবো ইনশাআল্লাহ। আগামী দ্বাদশ নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের কমিটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে প্রস্তুত থাকবে।

ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল

সোমবার রাত ৯টায় ছাত্রলীগের ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজে কমিটি প্রকাশ হওয়ার পর সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকদের উচ্ছ্বাস দেখা যায়। কমিটি ঘোষণার পর পরই আনন্দ মিছিল বের করেন ছাত্রলীগ কর্মীরা। মিছিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল থেকে বের হয়ে প্রধান ফটক পর্যন্ত কয়েকবার প্রদক্ষিণ করে। এসময় তারা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এবং নেতাদের নামে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। নতুন কমিটি নিয়ে কর্মীরা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্রতি কৃতজ্ঞতার কথা জানান। এসময় ছাত্রলীগ কর্মীরা ইত্তেফাককে বলেন, প্রায় সাত মাস পাবিপ্রবি ছাত্রলীগ অভিভাবক শূন্য ছিলেন। আজ সেই শূন্যতা পূরণ হয়েছে। সেই কারণে আমরা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাই এবং লেখক ভট্টাচার্য দাদার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। 

পদবঞ্চিতদের ক্ষোভ

এদিকে দীর্ঘদিন মাঠে থাকা সাবেক অনেক নেতা নতুন কমিটি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাদের দাবি দীর্ঘদিন ধরে সংগঠনের জন্য ত্যাগ স্বীকার করলেও তাদেরকে যথাযথভাবে মূল্যায়ন করেননি কেন্দ্রীয় সংগঠন। অনেকে দাবি করছেন পূর্ণাঙ্গ গঠনতন্ত্র অনুসরণ করে এই কমিটি দেওয়া হয়নি। 

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি মো. লিংকন হোসেন ইত্তেফাককে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ইতিহাসে এই কমিটিই সবচেয়ে বাজে যেখানে কোন ধরনের গঠনতন্ত্র মানা হয়নি। এই কমিটিতে শৃঙ্খলা, সিনিয়র-জুনিয়র, পূর্বের দায়িত্ব এবং বর্তমানের দায়িত্ব কোনটিরই সমন্বয় করা হয়নি। এরপরও কমিটি হয়েছে আমরা সেই কমিটিকে স্বাগত জানাচ্ছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাবেক এক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইত্তেফাককে বলেন, এখানে যোগ্যতার মূল্যায়ন করা হয়নি। অনেক যোগ্যতা সম্পন্ন নেতাকে বাদ দেওয়া হয়েছে, অনেকের নামই রাখেনি কমিটিতে যেটা খুবই হতাশাজনক ছিলো।

তবে নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সব নেতাকর্মীদের নিয়ে একসঙ্গে কাজ করার কথা জানিয়েছেন। 

ইত্তেফাক/এআই