বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ভয় পেয়ে ফের গণগ্রেফতার শুরু করেছে সরকার: রিজভী

আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০২২, ২১:২০

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, জনসমাবেশে গণজোয়ার দেখে সরকার ভয় পেয়েছে। এ কারণে দেশজুড়ে আবারও গণগ্রেফতার শুরু করেছে সরকার। কিন্তু এবার আর রক্ষা হবে না। সরকার পতনে বিএনপির সব অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সঙ্গে সাধারণ জনগণ রাজপথে নেমেছে। ইতোমধ্যে বিভাগীয় গণসমাবেশে তার প্রমাণ দেশবাসী দেখছেন। 

রোববার (১৩ নভেম্বর) নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

যুবলীগের সমাবেশে লোক ভাড়া করে আনা হয়েছে জানিয়ে রিজভী বলেন, আপনারা জনসমাগমের বাহাদুরি দেখান। কিন্তু সব লোক আনেন ভাড়া করে। যুবলীগের সমাবেশে সেটা দেশবাসী দেখেছে। আপনাদের যে দেশের মানুষ এখন আর পছন্দ করে না, চায় না সেটা ভাড়া করা লোক দেখলেই বোঝা যায়। 

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনার মন্ত্রী-নেতারা বলেন, বিএনপি নেতারা নাকি ১৩ বছরে ১৩ মিনিটও রাজপথ দখলে রাখতে পারেনি। তাহলে আপনার কাছে আমাদের প্রশ্ন, সেই বিএনপি যখন সমাবেশ ডাকে, তখন বাস-ট্রেন-লঞ্চসহ সব গণপরিবহন বন্ধ করা হয় কেন? আপনি এর কী উত্তর দেবেন প্রধানমন্ত্রী? 

আপনারা অপকর্ম ঢাকতে জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে যে কুৎসা রটান সেটি জনগণ জানে। আপনি জনগণকে বোকা বানাতে চাইলেও জনগণ উপলব্ধি করে। বিএনপির গণসমাবেশগুলোতে মানুষের ঢল অভূতপূর্ব উল্লেখ করে তিনি বলেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ঢাক-ঢোল বাজিয়ে সমাবেশে যোগ দিচ্ছেন। ফরিদপুরের জনসভায় দুই দিন আগে থেকেই আবদুল আজিজ ইনস্টিটিউশন মাঠে নেতা-কর্মীরা আসতে থাকেন। আশেপাশের বিএনপির স্থানীয় নেতা-কর্মীরা রান্না করে তাদের খাইয়েছেন। অনেকেই আশেপাশের স্কুলে আশ্রয় নিয়েছেন। মূল শহর থেকে ৬ কিলোমিটার দূর সমাবেশস্থল দেখে মনে হয়েছে, গোটা ফরিদপুর শহরসহ আশপাশের এলাকায় মানব-বন্যা সৃষ্টি হয়েছে। 

তিনি জানান, মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রদল সভাপতি রুবেল মিয়াকে ডিবি পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আমি নেতা-কর্মীদের গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে তাদের নিঃশর্ত মুক্তির জোর আহ্বান জানাচ্ছি। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা সাইফুল আলম নীরব, মো. আবদুর রহিম, তারিকুল আলম তেনজিং, মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু।

ইত্তেফাক/পিও