বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

তিন বছর পর বইছে সমাবর্তনের হাওয়া

আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০২২, ১১:২৩

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩তম সমাবর্তন আগামীকাল শনিবার। ২০১৯ সালে সর্বশেষ ৫২তম সমাবর্তনের মধ্য দিয়ে সর্বশেষ সমাবর্তন হয়। করোনা মহামারির অভিঘাতের কারণে তারপর তিন বছর আর কোন সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়নি। করোনা মহামারীর অভিঘাতের পর প্রথমবারের অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৫৩তম অনুষ্ঠিত হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের।

এবারের সমাবর্তনে অংশ নেওয়ার জন্য নাম লিখিয়েছেন মোট ৩০ হাজার ৩৪৮ গ্র্যাজুয়েট। তাদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও তার উপাদানকল্প কলেজ-ইনস্টিটিউটের গ্র্যাজুয়েট ২২ হাজার ২৮৭ জন, আর অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের গ্র্যাজুয়েট ৭ হাজার ৭৯৬ জন। 

দীর্ঘদিন পর সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে ক্যাম্পাস এলাকায়। বুধবার সকালে সমাবর্তনের কস্টিউমসহ আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র বিতরণের পর ক্যাম্পাস জুড়ে উসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

এবারের সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করবেন রাষ্ট্রপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদ। নোবেলজয়ী ফরাসি অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. জঁ তিরোল সমাবর্তন বক্তা হিসেবে থাকবেন।

ছবি: ইত্তেফাক

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মেহজাবিন হক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষে আমাদের সমাবর্তন প্রদান করা হবে এমন একটি বহুল প্রতীক্ষা ও আকাঙ্ক্ষা দীর্ঘদিন ধরে মনের মধ্যে পোষণ করে রেখেছিলাম। কিন্তু ক‌রোনা মহামারি আমাদের সে আশায় গুড়ে বালি দিলো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা সমাবর্তন পাচ্ছি এবং একটি উসব মুখর পরিবেশে আমাদের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে পারবো এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। 

গতকাল সমাবর্তন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান।

তিনি জানান, শনিবার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে শোভাযাত্রা শেষে ১২টায় এবারের সমাবর্তনের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। সেখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েট ও উপাদানকল্প কলেজ ও ইনস্টিটিউটের গ্র্যাজুয়েটরা থাকবেন। আর অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের গ্র্যাজুয়েটরা ঢাকা কলেজ ও ইডেন কলেজ ভেন্যু থেকে সমাবর্তনে অংশ নেবেন। 

ছবি: ইত্তেফাক

উপাচার্য জানান, সমাবর্তনে ১৩১ জন কৃতি শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীকে ১৫৩টি স্বর্ণপদক; ৯৭ জনকে পিএইচডি, ২ জনকে ডিবিএ এবং ৩৫ জনকে এমফিল ডিগ্রি দেওয়া হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এ পর্যন্ত মোট ৫২ জনকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি দেওয়া হয়েছে। এ বছর অধ্যাপক ড. জঁ তিরোলকে সম্মানসূচক ডক্টর অব লজ ডিগ্রি দেওয়া হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটরা খেলার মাঠের সুইমিংপুল সংলগ্ন গেইট দিয়ে সমাবর্তনস্থলে প্রবেশ করবেন। তাদের জন্য সকাল সাড়ে ৯টায় গেইট খোলা হবে এবং তারা সকাল ১১টার মধ্যে অবশ্যই সমাবর্তনস্থলে আসন গ্রহণ করবেন। আর আমন্ত্রিত অতিথিরা জিমনেসিয়াম সংলগ্ন গেইট দিয়ে সমাবর্তনস্থলে প্রবেশ করবেন। তাদের জন্য সকাল ১০টায় গেইট খোলা হবে এবং তারা সকাল সাড়ে ১১টার মধ্যে অবশ্যই সমাবর্তনস্থলে আসন গ্রহণ করবেন ।

অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা এবং নিবন্ধন করা গ্র্যাজুয়েটরা ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে ঢাকা কলেজ ও ইডেন মহিলা কলেজ ভেন্যু থেকে অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন এবং তারা সমাবর্তনস্থলে সকাল ১১টা ২০ মিনিটের মধ্যে আসন গ্রহণ করবেন; সমাবর্তনের দিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত টিএসসি ক্রসিং থেকে দোয়েল চত্বর, হাইকোর্ট থেকে দোয়েল চত্বর এবং ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত রাস্তায় গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রাখতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতা চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

ছবি: ইত্তেফাক

উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও আশেপাশে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ চলমান থাকায় গ্র্যাজুয়েট এবং অতিথিদের চলাচলে কিছুটা বিঘ্ন ঘটবে বলে আমরা দুঃখিত। তাই সমাবর্তন অনুষ্ঠান সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সকল সদস্য, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, র‍্যাব, অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, ফায়ার সার্ভিস, দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এবং গণমাধ্যমকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সদয় সহযোগিতা কামনা করছি।

ছবি: ইত্তেফাক

সমাবর্তন বয়কটের ডাক:
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ‘ডিজিটাল সমাবর্তন’ বয়কট করে আলাদা সমাবর্তন দাবি করেছেন ঢাবি অধিভুক্ত ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এ ছাড়া সাত কলেজের সর্বোচ্চ ফলধারী শিক্ষার্থীদের আলাদা স্বর্ণপদক দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে ঢাকা কলেজের মূল ফটকের সামনে এক মানববন্ধনে তারা এ সব দাবি জানান।

ইত্তেফাক/এমএএম