শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বাংলাদেশে সিঙ্গাপুরের বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান সালমান এফ রহমানের

আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৩২

বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে সিঙ্গাপুরকে আরও বেশি বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। 

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) ভবনের কনফারেন্স রুমে যৌথ বৈঠক করেন সালমান এফ রহমান এবং সিঙ্গাপুরের বাণিজ্য ও পরিবহনমন্ত্রী এস ইশ্বরন। বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে এস ইশ্বরন দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার নতুন ক্ষেত্র উন্মোচনের ওপর জোর দেন।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন সালমান এফ রহমান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুর উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি এবং মুক্তবাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) সম্পাদনের লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে। লজিস্টিকস ক্ষেত্রে সিঙ্গাপুরের দক্ষতা নিয়ে বাংলাদেশ বিভিন্নভাবে উপকৃত হতে পারে। তিনি বলেন, সিঙ্গাপুর আমাদের পুরোনো বন্ধু। দেশের জ্বালানি খাতে তারা অনেক আগেই বিনিয়োগ করেছে। এবার প্রচলিত জ্বালানির পাশাপাশি নবায়নযোগ্য শক্তিতে বিনিয়োগ বাড়াতে আগ্রহের কথা বলেছে তারা। এতে বন্ধুপ্রতিম দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার আরও নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে।

সিঙ্গাপুরের পরিবহন ও বাণিজ্যমন্ত্রী এস ইশ্বরন বলেন, বর্তমান বৈশ্বিক সংকট কাটিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার পথ তৈরি ও বাণিজ্য সুবিধা বৃদ্ধি এবং সিঙ্গাপুরের মাধ্যমে আসিয়ান দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আরও জোরদারের বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি। এসব বিষয় এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে দুই দেশের মধ্যে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ তৈরির কাজ চলমান।

তিনি আরও বলেন, উভয় দেশের বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। আইসিটি খাতে সিঙ্গাপুর বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে পারে। বাংলাদেশ পর্যটনসহ বিভিন্ন বিষয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রচারণা বৃদ্ধি করতে পারে। যেখানে বাংলাদেশের বিপুল সম্ভাবনাও রয়েছে।

বৈঠকে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মিয়া, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুণ ও ঢাকায় নিযুক্ত সিঙ্গাপুরের হাইকমিশনারসহ দুই দেশের সরকারি পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/এমএএম