শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বিএনপির মহাসমাবেশ

১০ ডিসেম্বর ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা বলয়

আপডেট : ১৯ নভেম্বর ২০২২, ০৮:০০

১০ ডিসেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছে বিএনপি। ঐ দিনই মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে ঢাকার প্রবেশমুখে সমাবেশ ও পাড়া-মহল্লায় সতর্ক পাহারায় থাকার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ। একইদিন দেশের প্রধান দুটি রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে জনমনে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এছাড়া দলগুলোর কেন্দ্রীয় নেতাদের পালটাপালটি বক্তব্য ঘিরেও জনমনে নানা উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে কঠোর বার্তা দেওয়া হয়েছে।

ফাইল ছবি

মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে না পারে সে ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় ঐ দিন পুলিশ, র‌্যাবের পাশাপাশি বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। পুরো ঢাকাকে নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে রাখা হবে। বাহিনীগুলোর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে সংশ্লিষ্ট দলগুলোর নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এ প্রসঙ্গে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন ইত্তেফাককে বলেন, যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে পুলিশ। যে ধরনের পরিস্থিতিই ঘটুক না কেন, সেটা মোকাবিলা করা হবে। কাউকে কোনো ধরনের ছাড় দেওয়া হবে না। 

র‌্যাবের মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন বলেন, কোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটতে দেওয়া হবে না। 

ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে নিরাপত্তা বলয়ের জন্য। যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা কেউ না ঘটাতে পারে।

বিএনপি

এদিকে বিএনপি ১০টি সাংগঠনিক বিভাগের মধ্যে ছয়টিতে গণসমাবেশ সম্পন্ন করেছে। ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশের মধ্য দিয়ে দলটির এই রাজনৈতিক কর্মসূচি সম্পন্ন হবে। এই মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে কঠোর বার্তা রয়েছে আওয়ামী লীগেরও। ঢাকার প্রবেশমুখে ও পাড়া-মহল্লায় সতর্ক পাহাড়ায় থাকবে আওয়ামী লীগ। 

এই পরিপ্রেক্ষিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যদি ঘটে, তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। রাজনৈতিক দল এ ধরনের সমাবেশকে কেন্দ্র করে জনমনে ভীতি সৃষ্টি না করে সেই বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলোকে এর দায় নিতে হবে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য যে ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, সেই ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/এমএএম