বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শরিক দলের অংশগ্রহণ ছাড়াই রাজশাহীতে প্রস্তুত বিএনপি

আপডেট : ২০ নভেম্বর ২০২২, ০০:৩৮

আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। এ সমাবেশের মাধ্যমে রাজশাহী অঞ্চলে রাজনীতির মাঠে বিএনপি নিজেদের একক শক্তি সম্পর্কে জানান দিতে চায়। সে কারণে এই বিভাগীয় সমাবেশে জামায়াতসহ তাদের শরিক দলগুলোর কোনো সহযোগিতাও নেবে না বলে জানিয়েছেন দলটি স্থানীয় নেতারা।

বিভাগীয় গণসমাবেশকে ঘিরে রাজশাহীতে প্রতিদিনই চলছে দলীয় ও সহযোগী সংগঠনের ছোট-বড় নানা কর্মসূচি। কিছুদিন পরপরই কেন্দ্রীয় নেতারা ঘন ঘন আসছেন রাজশাহীতে। লক্ষ্য একটাই, বিভাগীয় সমাবেশে জনসমাগম বৃদ্ধি।

বিএনপি নেতারা আশঙ্কা করে বলছেন, মহাসমাবেশের শেষ দিকে এসে ‘সরকার সৃষ্ট’ প্রতিবন্ধকতা বাড়তে পারে। তাই আঞ্চলিকভাবে শক্তি ও সামর্থ্য বেশি, এমন বিবেচনায় ঢাকার আগের সর্বশেষ গণসমাবেশটি রাজশাহীতে করার কৌশল নিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

বিভাগীয় সমাবেশের সমন্বয়কারী ও বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহীন শওকত খালেক বলেন, ‘এটি বিএনপির সমাবেশ। রাজশাহী অঞ্চলে বিএনপি অনেক বেশি শক্তিশালী। জনসমর্থন ও কর্মী সবকিছু মিলে বিএনপির অন্য কোনো দলের প্রয়োজন নেই। তাই বিভাগীয় গণসমাবেশের জন্য শরীক দলগুলোর কোনো সহযোগিতাও নেওয়া হচ্ছে না।’

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সমাবেশের প্রধান সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, ‘ঢাকার সমাবেশের আগে সরকার কঠোর অবস্থানে যেতে পারে। আরও কঠোর হয়ে নেতা-কর্মীদের হয়রানি ও নির্যাতনের কৌশল নিতে পারে। শক্তি-সামর্থ্যের বিচারে রাজশাহীতে তারা অনেক বেশি শক্তিশালী। এ কারণে ঢাকার আগের সমাবেশটি এখানে করা হচ্ছে।’ দীর্ঘদিনের জোটসঙ্গী হলেও এই সমাবেশে জামায়াতের কোনো সহযোগিতা না নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান বিএনপির এই নেতা।

এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, রাজশাহী সিটির সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু জানান, তারা জামায়াত বা জোটের শরীক দলগুলোর কোনো সহযোগিতা নিচ্ছেন না। তাদের দাওয়াত দিচ্ছেন না। তবে উন্মুক্ত সমাবেশে যে কেউ আসতেই পারে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘আগের সবকটি বিভাগীয় সমাবেশকে ছাড়িয়ে বৃহৎ মহাসমাবেশ হবে রাজশাহীতে। রাজশাহী অঞ্চল ঐতিহাসিকভাবেই বিএনপির ঘাঁটি। সরকারের বর্তমান কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ। এ কারণে মানুষ এই সমাবেশে উপচে পড়বে বলে আমরা আশা করছি। সরকার চাইলেও আটকে রাখতে পারবে না।’

এদিকে, সমাবেশের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার বিএনপি নেতারা গণসমাবেশস্থল রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদরাসা ময়দান পরিদর্শন করেছেন। সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে বিপুল সংখ্যক মানুষের সমাগম ঘটনোর জন্য নেতারা মঞ্চ প্রস্তুতের বিভিন্ন কাজ ঘুরে দেখেন। বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলনের নেতৃত্বে মাঠ পরিদর্শন করেন রাজশাহীর বিএনপি নেতারা।

এ সময় বিএনপি নেতা শফিকুল হক মিলন বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সার্বিক সহযোগিতা এবং পরামর্শে এই সমাবেশ হতে যাচ্ছে। সমাবেশে সরকার পতনের ডাক দেওয়া হবে। তাই রাজশাহীর গণসমাবেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

ইত্তেফাক/এসকে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন