রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে বিএনপির কর্মসূচি ‘বেইজলেস’: পরশ 

আপডেট : ২১ নভেম্বর ২০২২, ২০:২৩

খালেদা জিয়ার মুক্তি আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে বিএনপি যে সভা-সমাবেশ করছে সেটা ‘বেইজলেস’ ইস্যু বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। আগামী ২৪ নভেম্বর যশোর স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করতে কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রস্তুতি সভায় বক্তব্যকালে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

সোমবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে যশোর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরস বলেন, এতিমদের টাকা লোপাটের দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদার মুক্তি নিয়ে বিএনপি যে আন্দোলন সমাবেশ করছে সেটা ‘বেইজলেস’ (ভিত্তিহীন) ইস্যু। জনগণের মধ্যে কোনো আবেদন তৈরি করতে না পেরে ভিত্তিহীন সব ইস্যু নিয়ে তারা কর্মসূচি সমাবেশ করে বেড়াচ্ছে। জনস্বার্থে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি গ্রহণ না করে বিএনপি ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা দখলের পায়তারার অংশ হিসাবে তাদের এসব কর্মসূচি। তাদের ইস্যুভিত্তিক কোনো রাজনীতি নাই। ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার ছাড়া বিএনপির কোনো রাজনৈতিক ভিত্তি নেই। তাই বর্তমানে এই দেশ ও দেশের মেহনতি, সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করা একান্ত প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই লক্ষে আগামী ২৪ নভেম্বরের সমাবেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সমাবেশ সফল করতে হলে যুবলীগের সব পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। সমাবেশস্থল যশোর স্টেডিয়াম জনসমুদ্রে পরিণত করতে হবে। অনুষ্ঠানে খুলনা বিভাগের সাত জেলার (যশোর, ঝিনাইদহ, নড়াইল, মাগুরা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট ও খুলনাসহ) যুবলীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে সমাবেশের দিন হলুদ রঙের ক্যাম্প পরিধান করে যশোর স্টেডিয়ামে বেলা ১০টার মধ্যে যোগ দেওয়ার নির্দেশনা দেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক আওয়ামী লীগ সরকারের নানা উন্নয়নের তথ্য তুলে ধরে বলেন, আওয়ামী লীগ একটি গতিশীল রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগ একটি নতুন আকাঙ্খা, নতুন চেতনাকে ধারণ করার দল। আজকে দেশ বদলে গেছে, এই বদলে যাওয়ার পেছনের শক্তিটাই আওয়ামী লীগ। মানুষ সকল সুযোগ-সুবিধা পাবে, সুন্দর জীবন-যাপন করবে, উন্নত জীবনযাপন করবে, ক্ষুধা, দারিদ্র্য, হানাহানি থাকবে না, আওয়ামী লীগ সেই লক্ষ্যে কাজ করছে। 

তিনি আরও বলেন, তারপরও বারবার শেখ হাসিনা সরকারকে পরিবর্তন করার জন্য ষড়যন্ত্র হয়েছে। বর্তমানে সেই ষড়যন্ত্র চলমান। তাই শেখ হাসিনার হাতকে ঐক্যবদ্ধ করতে আমাদের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। 

আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংগঠনটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুব্রত পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ড. শামীম আল সাইফুল সোহাগ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ার হোসেন, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, জেলা যুবলীগের সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু।
 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল উদ্দিন, মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন এমপি, রফিকুল ইসলাম, নবী নেওয়াজ, মৃনাল কান্তি জোয়ারদার, ব্যারিস্টার তৌফিকুর রহমান সুজন, ড. আশিকুর রহমান শান্তসহ যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ও খুলনা বিভাগের ৭টি জেলা যুবলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। 

এর আগে যুবলীগের প্রস্তুতি সভাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে যশোরের বিভিন্ন উপজেলা থেকে মিছিল সহকারে সভাস্থলে যোগ দেন নেতা-কর্মীরা। এ সময় শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে যশোর জেলা পরিষদ মিলনায়তন প্রাঙ্গণ। এছাড়া ৫ বছর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভাকে কেন্দ্র করে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বর্তমানে যশোরে অবস্থান করছেন। ফলে দেড় দশকেরও বেশি মেয়াদোর্ত্তীণ যশোর জেলা যুবলীগ নেতা-কর্মী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে চাঙ্গাভাব ফিরে এসেছে। 

ইত্তেফাক/পিও