রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ভুল চিকিৎসা হয়নি- সংবাদ সম্মেলনে দাবি ডাঃ জাহীর আল আমীনের

আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৫০

গত মার্চের ২০২০ সালের ইমপালস হাসপাতালের তেজগাঁও সেন্টারে মোমেনা হক মুনের কানের অস্ত্রোপচারে কোনো ভুল হয়নি বলে দাবি করেছেন ডাঃ জাহীর আল আমীন। মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন তিনি। তিনি বলেন, বিএমডিসি গঠিত বিশেষ কমিটি তিনি ও মোমেনা হক মুন বক্তব্য না নিয়েই রিপোর্ট দিয়েছেন। যার ভিত্তিতে তাকে ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বিএমডিসি।

অধ্যাপক ডা. জাহীর আল-আমীনের নিবন্ধন এক বছরের জন্য স্থগিত করে গত ১৬ নভেম্বর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ডা. মো. লিয়াকত হোসেন স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি জারি করে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)।

ভুল চিকিৎসা দেওয়া এবং একজন নারী রোগী মোমেনা হক মুন এর প্রতি অবহেলা দেখানোর জন্য ২০ নভেম্বর থেকে এক বছরের জন্য তাকে বরখাস্ত করা হয়।

ডা. আল-আমীন (বিএমডিসি রেজিস্ট্রেশন নং এ-১২৬৮৮) একজন সিনিয়র চিকিৎসক এবং ইএনটি ও হেড-নেক সার্জারি বিশেষজ্ঞ।

এছাড়াও তিনি ঢাকার তেজগাঁওয়ে ইমপালস মেডিকেল সার্ভিসেস অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)। সংশ্লিষ্ট রোগী সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ডা. আল-আমীন জানান, ‘রোগীর ভুল অপারেশন হয়েছে এটা ঠিক নয়। অপারেশন অত্যন্ত সফলভাবে হয়েছে যার প্রমাণ রোগীর এখন পর্যন্ত যে টিউমারের জন্য অপারেশন করা হয়েছিল তা থেকে মুক্ত আছেন। রোগীর মুখ বেঁকে যায়নি। বাংলাদেশ বা বিদেশের যে কোন ডাক্তার আমার উপস্থিতিতে পরীক্ষা করে দেখুক। তারা যদি বলে রোগীর মুখ বেকে গেছে সেটা আমি মাথা পেতে নেব। বাকা যদি আমার অদক্ষতার কারণে হয়ে থাকে তার সমস্ত দায়িত্ব আমার। এ ব্যাপারে আপনারা নিজেরাই রোগীর সাথে কথা বলে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন’।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ডাঃ জাহির আল-আমীনের কাছে চিকিৎসা নেওয়া বেশ কয়েকজন রোগিকে হাজির করা হয়। তারা ডাক্তার জাহিরের চিকিৎসার সুনামের পাশাপাশি তার খ্যাতি নষ্ট করতে এক কুচক্রি মহল এমন করছে বলে অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়।

ইত্তেফাক/এসসি