বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ঢাকার জজকোর্টে জঙ্গি নাটক সন্দেহজনক: রিজভী

আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২২, ০২:১৭

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন,ঢাকার জজকোর্টে যে জঙ্গি নাটক হলো সেটা সন্দেহজনক। হাতকড়া পরা জঙ্গি চলে গেল বীরদর্পে। পুলিশের কোনো নিরাপত্তা নেই। আওয়ামী লীগ দেশের মানুষকে বেকুব মনে করে। আহম্মক মনে করে। আর তাদের মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন বিএনপি নাকি জঙ্গি সৃষ্টি করছে! প্রকৃতপক্ষে জঙ্গিদের কাজ ও আওয়ামী লীগ সরকারের কাজের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। ওরা যে জঙ্গিদের মতো কাজ করে তার প্রমাণ ভুরি ভুরি। সাবেক আইজিপি শহীদুল হক তার বইয়ে লিখেছেন। আসলে তারাই জঙ্গির নাটক করে।

মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে দিনব্যাপী ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ও ওষুধ বিতরণ কর্মসুচির আয়োজন করে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)। সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ডা. মো. আবদুস সালামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, মীর সরফত আলী সপু, ড্যাবের ডা. এরফানুল হক সিদ্দিকী, ডা. মো. ফখরুজ্জামান ফখরুল, এম-ট্যাবের বিপ্লবুজ্জামান বিপ্লব, দবির উদ্দিন তুষার প্রমুখ।

রিজভী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে ছাত্রদলের নেতা নয়নকে হত্যার ঘটনা টেনে বলেন,এটা তো পুলিশ করেছে। এটা কি জঙ্গির মতো আচরণ নয়? ইলিয়াস আলী গুম। এটাও তো জঙ্গিদের কাজ। জাকির খুন। এটাও তো জঙ্গিদের কাজ। মানবসেবার মাধ্যমে রাজনীতিবিদ গড়ে ওঠেন মন্তব্য করে রিজভী বলেন,যেমনটি আমাদের নেতা তারেক রহমান মানুষের সেবার জন্য সুদূর পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ছুটে গেছেন। তিনি মানুষের মাঝে ছাগল ও হাঁস-মুরগি বিতরণ করছেন। হুইল চেয়ার বিতরণ করেছেন। বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ করেছেন। যেমনটি করেছিলেন তার বাবা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান।মহামারি করোনাকালেও বিএনপির নেতাকর্মীরা গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে ছুটে গেছেন তারেক রহমানের নির্দেশনায়। সম্প্রতি ভয়াবহ বন্যার সময়ও বিএনপির নেতাকর্মীরা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন।এটাই হচ্ছে তারেক রহমানের দর্শন। তারেক রহমানের রাজনীতিকে কেউ কখনো মুছে দিতে পারবে না। 

তিনি বলেন, জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেছেন, নিশিরাতে ভোট হয়। আর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বললেন, তিনি নাকি জাপানের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এনে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। আসলে জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে কোনো দেখা হয়নি। মানুষ যখন পতনের দ্বারপ্রান্তে চলে আসে তখন প্রচণ্ড আবোল তাবোল বলতে থাকে।

ইত্তেফাক/ইআ