সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মালয়েশিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করবেন রাজা আবদুল্লাহ

আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২২, ১৩:৪৪

মালয়েশিয়ার সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনের ফলে কোনো দল বা জোট সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় পার্লামেন্ট এখন ঝুলন্ত অবস্থায় আছে। রাজনৈতিক দলগুলোও সরকার গঠনে নিজেদের মধ্যে একমত হতে ব্যর্থ হয়েছে। এ অবস্থায় মালয়েশিয়ার পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করতে যাচ্ছেন রাজা আল-সুলতান আবদুল্লাহ। শিগগিরই তিনি দেশের নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ দেবেন বলে জানিয়েছেন। খবর রয়টার্সের।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তবে রাজা আবদুল্লাহ এই সিদ্ধান্তের জন্য নির্দিষ্ট কোনো সময়সীমা উল্লেখ করেননি। ন্যাশনাল প্যালেসের বাইরে উপস্থিত সাংবাদিকদেরকে তিনি বলেন, 'আমাকে দ্রুত এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে দিন।'

সরকার গঠনের বিষয়ে যে কোনো সিদ্ধান্ত মেনে নিতে সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানান রাজা। এই নির্বাচনের আগে মালয়েশিয়ায় জনমত জরিপে আনোয়ার এগিয়ে থাকলেও সাবেক প্রধানমন্ত্রী মহিউদ্দিনের জোটের অপ্রত্যাশিত ফলাফল অনেককেই অবাক করেছে। কিন্তু কোনো দলই প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি।

সরকার গঠনের বিষয়ে যে কোনো সিদ্ধান্ত মেনে নিতে সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানান রাজা

মালয়েশিয়ার ২২২ আসনের সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য ১১২টি আসনের প্রয়োজন ছিল। আনোয়ারের দল পায় ৮২টি আসন। আর মহিউদ্দিন ইয়াসিনের পরিকতান ন্যাশনাল পেয়েছে ৭৩টি আসন।

গত রোববার (২০ নভেম্বর) ছোট দুইটি দলের সমর্থন পাওয়ায় পরিকতান ন্যাশনাল জোটের আসন সংখ্যা ১০১ হয়েছে বলে জানানো হলেও তা সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় আসনের চেয়ে কম। অচলাবস্থা ভাঙতে রাজা আবদুল্লাহ দুই দলকে একসঙ্গে 'ঐক্য সরকার' গঠনের পরামর্শ দেন।

আনোয়ারের দল পায় ৮২টি আসন

কিন্তু দল দুইটি সমঝোতায় পৌঁছতে ব্যর্থ হয়েছে। মহিউদ্দিন জানান, তিনি আনোয়ারের সঙ্গে কাজ করবেন না। মুহিউদ্দিন মালয় মুসলিম কনজারভেশন অ্যালায়েন্স পরিচালনা করেন। অন্যদিকে আনোয়ার একটি বহুজাতিক জোটের নেতৃত্ব দেন।

রাজা আবদুল্লাহ শেষ সুযোগ হিসেবে রাজনৈতিক দলগুলোকে মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) স্থানীয় সময় দুপুর ২টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে এই সময়ের মধ্যে দলগুলোকে জোট গঠন করে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করতে হবে বলে জানিয়েছিলেন। তবে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল বারিসান ন্যাশনাল কোয়ালিশন জানিয়েছে, তারা সরকার গঠনে অন্য দুইটি জোটের কোনোটিকেই সমর্থন করবে না। 

সাবেক প্রধানমন্ত্রী মহিউদ্দিন

ফলে এখন বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করতে হচ্ছে সাংবিধানিক রাজাকে। মালয়েশিয়ায় রাজার ভূমিকা মূলত প্রতীকী। তবে তিনি এমন কাউকে নিয়োগ করতে পারেন যাকে তিনি সংখ্যাগরিষ্ঠের যোগ্য মনে করেন।

রাজা আবদুল্লাহ ইতোমধ্যে আনোয়ার ও মহিউদ্দিনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন এবং বারিসান ন্যাশনালের আইনপ্রণেতাদেরকে বুধবার (২৩ নভেম্বর) বৈঠক করার জন্য ডেকেছেন।

আনোয়ার ও মহিউদ্দিন দুইজনই দাবি করেছেন, সরকার গঠন করার মতো পর্যাপ্ত সমর্থন তাদের আছে

আনোয়ার সাংবাদিকদেরকে জানান, রাজা সকলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে একটি শক্তিশালী সরকার গঠনের ইচ্ছা প্রকাশ করেন। যে সরকারের লক্ষ্য থাকবে অর্থনীতির দিকে মনোনিবেশ করা। 

আনোয়ার ও মহিউদ্দিন দুইজনই দাবি করেছেন, সরকার গঠন করার মতো পর্যাপ্ত সমর্থন তাদের আছে। তবে কারা তাদের সহায়তা করছে তা তারা সনাক্ত করতে পারেননি।

ইত্তেফাক/ডিএস