শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বিএনপি সমাবেশের নামে ষড়যন্ত্র করলে জনগণ উচিত জবাব দেবে: হানিফ

আপডেট : ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১৭:০০

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপি সমাবেশের নামে ষড়যন্ত্র করলে জনগণ উচিত জবাব দেবে।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি পায়ে পাড়া দিয়ে গোলযোগ করতে চায়। সমাবেশের নামে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিচ্ছে। তারা ঢাকায় ১০ ডিসেম্বর সমাবেশ ডেকেছে। তাদের ভাবখানা এমন যেন ১০ তারিখের পর সরকারই থাকবে না। তারা বলেছে ১০ ডিসেম্বরের পর খালেদা জিয়ার কথায় দেশ চলবে। আমরা বলতে চাই, ডিসেম্বর মাস আমাদের বিজয়ের মাস। এ মাস কোনো রাজাকার বা আলবদরদের হতে পারে না। ষড়যন্ত্র করতে যদি মাঠে নামেন তাহলে জনগণ উচিত শিক্ষা দিয়ে দেবে’।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) দুপুরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে মাহবুব উল আলম হানিফ একথা বলেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি ঢাকায় ১০ লাখ লোকের সমাবেশ করবে। তারা সমাবেশ পল্টনে করতে চায়। তাদের জনসমাবেশের সংখ্যা দেখে পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সমাবেশের জন্য ভালো হবে। তারা সেখানে সমাবেশ করবে না। কিন্তু পল্টনেতো ৫০/৬০ হাজারের বেশি লোকের জায়গা হবে না। তারপরও কেন তারা সেখানে করতে চায়। কারণ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান হলো আমাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত জায়গা। এখানে বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। আর এখানেই ৭১ সালে পাকিস্তানিরা আত্মসমর্পণ করেছিল। তাই তারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যেতে চায় না। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান রাজাকার-আলবদরদের জন্য একটি মনকষ্টের জায়গা’।

তিনি বলেন, ‘নয়াপল্টনে তাদের অফিসের সামনে লোকজন জমায়েত করে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে সরকারকে বিব্রত করতে চায়। এটি তাদের আরেকটি লক্ষ্য। বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোনো ষড়যন্ত্রের পথ খুঁজলে তার উচিত জবাব দেওয়া হবে’।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে যদি দুর্বল ভাবেন তাহলে ভুল করবেন। ২০১৩, ২০১৪ সালে জ্বালাও পোড়াও করে মানুষ হত্যা করেছেন। সেই অপকর্মের জন্য যে শাস্তি ভোগ করতে হয়েছে আগামীতে এমন অপরাধের জন্য আপনাদের তারচেয়ে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। রেহাই পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই’।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন মিয়াজীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক গাজী মাইনুউদ্দিনের পরিচালনায় সমাবেশে মুক্তিযুদ্ধের ১ নম্বর সেক্টরের কমান্ডার ও চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনের সংসদ সদস্য মেজর অব. রফিকুল ইসলাম, জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক(চট্রগ্রাম বিভাগ) আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলালসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

ইত্তেফাক/আরএজে