শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

গাইবান্ধা-ঝিনাইদহে ২ ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে ‘হত্যা’

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১২:২৭

গাইবান্ধা ও ঝিনাইদহে সোমবার  (২৮ নভেম্বর) রাতে দুই ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

নিহতরা হলেন- গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে  কানাইপাড়া গ্রামের আবু রায়হান খট্টুরের ছেলে আব্দুর রহমান মাসুদ (৪০) এবং ঝিনাইদগের

মহেশপুরের ধানহাড়িয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে জীবন চৌধুরী ওরফে টিটন (৩০)। 

সংবাদদতাদের পাঠানো তথ্য অনুসারে,  গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের নয়ারহাটের শীতবস্ত্রের বাজারে রাত পৌনে ৮টার দিকে পোশাক ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান মাসুদকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইজার উদ্দীন জানান, রাতে ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান মাসুদ বাজার মসজিদের কাছে গেলে আগেই ওৎপেতে থাকা অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তার ওপর অস্ত্র নিয়ে হামলা করে শরীরে ও গলায় আঘাত করে। এ সময় তিনি চিৎকার করলে বাজারের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়ায় নেয়া পথে তিনি মারা যান।

এদিকে, ঝিনাইদহের মহেশপুরের ধানহাাড়িয়া গ্রামে রাত ১১টার দিকে ব্যবসায়ী জীবন চৌধুরী ওরফে টিটনকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন যাদবপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়াররম্যান সালাউদ্দিন ।

মহেশপুর থানার পরিদর্শক ইসমাইল হোসেন বলেন, সন্ধ্যায় টিটন তার বাড়ির পাশে চায়ের দোকানে বসে ছিলেন।  এ সময় কয়েকজন ব্যক্তি তিনটি মোটরসাইকেলে করে এসে তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়।  স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তিনি জানান, পূর্বশত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিন্তু তদন্তের স্বার্থে নাম গোপন রাখা হচ্ছে। নিহত টিটনের বিরুদ্ধে প্রতরণাসহ তিনটি মামলা রয়েছে মহেশপুর থানায়।

টিটন র‌্যাব, সেনা কর্মকর্তা ও ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন স্থানে বিয়ে করেছিল। নিহত ব্যক্তি ও হামলাকারী উভয়ে খারাপ প্রকৃতির বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

ইত্তেফাক/আরএজে