বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

দ্য ইকোনমিস্টকে ‘ধুয়ে’ দিলেন এরদোয়ান

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭:১৮

ব্রিটিশ সাপ্তাহিক দ্য ইকোনমিস্ট তুর্কির আসন্ন নির্বাচনে মনোযোগ দেওয়ার জন্য বহিরাগতদের আহ্বান জানিয়ে একটি গল্প প্রকাশ করে। সেখানে দাবি করা হয় এরদোয়ানের অধীনে দেশ ‘বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে’। তুর্কির প্রেসিডেন্ট শুক্রবার(২০ জানুয়ারি) ম্যাগাজিনের সাম্প্রতিক এই কভার স্টোরি উল্লেখ করে বলেন দ্য ইকোনমিস্ট তুর্কির ভাগ্য নির্ধারণ করতে পারে না

ইস্তাম্বুলে রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান সাংবাদিকদের বলেন, ‘ব্রিটিশ ম্যাগাজিন কি তুর্কির ভাগ্য নির্ধারণ করে? আমার জাতি তা নির্ধারণ করে। আমার জনগণ যা বলবে তুর্কিতে তা হবে।’

তুর্কির কমিউনিকেশন ডিরেক্টর ফাহরেতিন আলতুন বৃহস্পতিবার দ্য ইকোনমিস্টকে তুর্কিতে সস্তা প্রচারের জন্য দোষারোপ করেছেন।  

তিনি বলেন, ‘আপত্তিকর শিরোনাম এবং উত্তেজক ছবি তাদের তথাকথিত জার্নাল বিক্রি করতে সহায়তা করতে পারে, তাই আমরা তাদের উদ্ভাবনী বিপণন কৌশলগুলির জন্য তাদের অভিনন্দন জানাই! কিন্তু আমাদের অবশ্যই শ্রোতাদের মনে করিয়ে দিবো, এধরণের উত্তেজনাপূর্ণ সাংবাদিকতা  সস্তা প্রচার এবং অপপ্রচারের উপর ভিত্তি করে চলছে।’

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান।

অপরদিকে, তুর্কির সম্পর্কে গ্রিক প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিৎসোটাকিস সাম্প্রতিক মন্তব্য সম্পর্কে, এরদোয়ান বলেন গ্রিস ১৯২৩ সালের লুসান চুক্তি এবং এজিয়ান দ্বীপপুঞ্জের অন্যান্য চুক্তির বিপরীত পদক্ষেপ নিচ্ছে।

মিৎসোটাকিস বৃহস্পতিবার বলেন, ‘গ্রিস তুর্কিয়ের সাথে যুদ্ধে যাবে না এবং দুই দেশ এই অঞ্চলে উত্তেজনা কমানোর চেষ্টা করতে পারে।’
এরদোয়ান বলেন, ‘কিরিয়াকোস মিৎসোটাকিসের এসব বক্তব্য বিশেষ করে এই অঞ্চলের ভাগ্য নির্ধারণের জন্য যথেষ্ট নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বৈঠকে, তুর্কিয়ে গ্রিসের সম্পর্কে যা প্রয়োজন তা বলে। সুতরাং, তারা (গ্রিস) নিজেদের যত্ন নেবে।’

তুর্কি, ৭০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ন্যাটো সদস্য, সাম্প্রতিক মাসগুলিতে এই অঞ্চলে গ্রিসের দ্বারা বারবার উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড এবং বাকবিতণ্ডার অভিযোগ করেছেন, যার মধ্যে তুর্কি উপকূলের কাছে সশস্ত্র দ্বীপগুলি থেকে সব সামরিক বাহিনীকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে যা চুক্তিবদ্ধ ছিল।

ইত্তেফাক/এফএস/এএএম