বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পরিবর্তন চাইলে বিএনপিকে নির্বাচনে আসতে হবে: ওবায়দুল কাদের 

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬:১১

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনে আসুন, পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে আসতে হবে বিএনপিকে। নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচনকে আওয়ামী লীগ সরকার সহায়তা করবে। আন্দোলনে সংগ্রামে নির্বাচনে ব্যার্থ তাদের নিজেদেরই পদত্যাগ করা উচিত।  

রোববার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ডিটিসিএ'র নতুন ভবনে ঢাকা ট্রান্সপোর্ট কোঅর্ডিনেশন অথরিটি’র বোর্ড সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি- ফেসবুক থেকে নেওয়া

সরকারের পদত্যাগ প্রসঙ্গে কাদের বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ৩০ সিটও পাবে না উল্টো তাদেরই ভরাডুবি হয়েছে। ১৪ ও ১৮ সালের নির্বাচনে জনগণ তাদের বয়কট করেছে।  

'১০ তারিখের আন্দোলনে ব্যর্থ তাদের পতন চায় জনগণ, যারা আন্দোলন, নির্বাচনে ব্যর্থ'।

বিএনপিতে গণতন্ত্র নেই দাবি করে কাদের বলেন, বিএনপির কবে সম্মেলন হয়েছে তাদের মনে আছে? দিন যায় বছর যায় সম্মেলন হয় না তাদের নিজেদের ঘরেই গণতন্ত্র নেই।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি- ফেসবুক থেকে নেওয়া

পিটার হাসকে অনুরোধ করবো যারা বলে গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে বলে অভিযোগ করে তাদেরকেই জিজ্ঞেস করুন তাদের ঘরে গণতন্ত্র নেই কেন।

আন্দোলনে সংগ্রামে নির্বাচনে ব্যর্থ বিএনপি নেতাদের নিজেদেরই পদত্যাগ করা উচিত বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।  

বিএনপির গণঅভ্যুত্থানের হুমকি সম্পর্কে কাদের বলেন, ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থানে তাদের কোনো অবদান নেই। তারা গণঅভ্যুত্থানের স্বপ্ন দেখেন কিন্তু তাদের আন্দোলনে তারা জনসাধারণকে যুক্ত করতে পারেনি।  

বিরোধী দলের উদ্দেশে কাদের বলেন, সংকটে দেশের জন্য না ভেবে তারা সরকারের সঙ্গে সংঘাতে যাচ্ছে। বিশ্ব সংকটে দেশের জনগণ কষ্ট পাচ্ছে, আমরা বিশ্ব সংকটের মূল্য দিচ্ছি।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি- ফেসবুক থেকে নেওয়া

সামাজিক মাধ্যমে উল্টা পাল্টা তথ্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগের কোনো মাথা ব্যাথা নেই বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

এ বোর্ড সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নুর তাপস, সড়ক সচিব এবিএম আমানউল্লাহ নুরী, ডিটিসিএ নির্বাহী পরিচালকসহ সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের একাধিক কর্মকতা উপস্থিত রয়েছেন।

ইত্তেফাক/এমএএম