শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

শোয়েব মালিকের ঝড়ো ফিফটিতে বড় সংগ্রহ রংপুরের

আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫:৪৯

চট্টগ্রাম পর্ব শেষ করে বিপিএল ফিরেছে ঢাকায়। ঢাকায় দ্বিতীয় পর্বের প্রথম ম্যাচেই জয়ে ফেরার লক্ষ্য নিয়ে মুখোমুখি হয় রংপুর রাইডার্স ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। আগে ব্যাটিং করে শোয়েব মালিকের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৮০ রান সংগ্রহ করে রংপুর।   

ঢাকায় দ্বিতীয় পর্বে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্বান্ত নেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক শুভাগত হোম। ব্যাট হাতে নেমে ২৬ রানেই ২ উইকেট হারায় রংপুর রাইডার্স। মাহেদি হাসানকে ১ ও তিন নম্বরে নামা পারভেজ হোসেন ইমনকে ৬ রানে ফিরিয়ে দেন  স্পিনার শুভাগত।

তৃতীয় উইকেট পাকিস্তানের শোয়েব মালিককে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে উঠার চেষ্টা করেন আরেক ওপেনার মোহাম্মদ নাইম। কিন্তু নবম ওভারে চট্টগ্রামের শ্রীলংকান স্পিনার বিজয়কান্তের বলে থামেন নাইম। ৫টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৯ বলে ৩৪ রান করেন তিনি।

৪৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া  রংপুরের  হাল ধরেন মালিক ও আফগানিস্তানের আজমতুল্লাহ ওমরজাই। দ্রুত রান তুলতে চট্টগ্রামের বোলাদের উপর চড়াও হন মালিক। স্পিনার তাইজুল ইসলামের প্রথম ও তৃতীয় ওভারে ৫টি ছক্কা ও ১টি চার মারেন মালিক। তাইজুলের করা  তৃতীয় ও ইনিংসের ১৪তম ওভারে ২৫ রান তুলেন মালিক। ঐ ওভারেই ২৮ বলে এবারের আসরে দ্বিতীয় হাফ-সেঞ্চুরি পান  মালিক। তার ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৪তম ওভারেই ১শ রান স্পর্শ করে রংপুর।

মালিকের অর্ধশতকের পর মারমুখী হয়ে উঠেন ওমারজাই। বিজয়কান্তর শেষ দুই ওভারে ৩টি ছয় ও ১টি চার মারেন তিনি। ১৮তম ওভারের প্রথম বলে পেসার মেহেদি হাসান রানার বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন ১টি চার ও ৪টি ছক্কায় ২৪ বলে ৪২ রান করা  ওমারজাই। ওমারজাই চতুর্থ উইকেটে মালিকের সাথে ৫৩ বলে ১০৫ রান যোগ করেন।

শেষ ওভারে পাকিস্তানের মোহাম্মদ নাওয়াজকে ৯ ও শামীম হোসেনকে ৭ রানে শিকার করেন রানা। ৪৫ বলে ৭৫ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন মালিক। ৫টি করে চার-ছয় মারেন তিনি। ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৭৯ রানের সংগ্রহ পায় রংপুর।

বল হাতে চট্টগ্রামের পক্ষে ৪ ওভারে ৩৯ রানে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন রানা। ৩ ওভারে ১৩ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন শুভাগত।

ইত্তেফাক/এসএস