শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ভাড়াটিয়ার স্বীকারোক্তি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জুতা নিয়ে তেড়ে আসায় বাড়িওয়ালাকে খুন

আপডেট : ২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১৯:০৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে হাতে জুতা নিয়ে তেড়ে আসায় নারী বাড়িওয়ালাকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে হত্যা করেছে ভাড়াটিয়া আমিন মিয়া (২৬)।রোববার (২২ জানুয়ারি) বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরেফিন আহমেদ হ্যাপির আদালতে আসামি আমিন মিয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহরাব আল হোসাইন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।   

নিহত বাড়িওয়ালার নাম শিরিনা বেগম (৬০)।  তিনি শহরের মধ্য মেড্ডা এলাকার সবুজ আলীর স্ত্রী। অন্যদিকে আসামি আমিন মিয়া একই এলাকার মৃত হিরা মিয়ার ছেলে। 

শিরিনের পরিবার জানায়, আমিন তার স্ত্রীকে নিয়ে নিহত শিরিনা বেগমের বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করছিলো। ৩ মাস যাবত আমিন মিয়া বাসাভাড়া দিচ্ছিলেন না।  শনিবার (২১ জানুয়ারি) সকালে শিরিনা বেগম আমিন মিয়ার কাছে তিন মাসের ভাড়া আনতে যান। এ সময় দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হলে শিরিনা বেগম জুতা দিয়ে আমিনকে মারতে যান। তখন আমিন গামছা দিয়ে শিরিনাকে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য লাশ তোষকে মুড়িয়ে খাটের নিচে লুকিয়ে রাখে। স্বজনরা শিরিনাকে বাসায় না পেয়ে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে আমিনের ঘরের খাটের নিচে লেপে মুড়ানো শিরিনার লাশ দেখতে পায়। তখন এলাকাবাসী আমিনকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সোহরাব আল হোসাইন জানান, শিরিনাকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ আমিনকে আটক করে। বকেয়া ভাড়া নিয়ে দ্বন্দ্বে এ হত্যা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ইত্তেফাক/বুখারী/পিও