শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বক্স অফিসে রেকর্ড গড়বে শাহরুখের পাঠান?

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২৩, ১৯:১৩

চার বছর পর আবার মুক্তি পাচ্ছে শাহরুখ খানের সিনেমা। তাই পাঠান নিয়ে শাহরুখ-ভক্তদের উৎসাহ তুঙ্গে। উত্তেজনার পারদ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে এই সিনেমা নিয়ে বিতর্ক।

৫৭ বছর বয়সটা কি ম্যাচো সুপারহিরো হওয়ার পক্ষে একটু বেশি? অন্ততপক্ষে শাহরুখ খানের কাছে নয়। ৫৭ বছর বয়সে তিনি পাঠানে যে ভূমিকায় অভিনয় করেছেন, তা ওই ম্যাচো সুপারহিরোর। বড় চুল, সুঠাম শরীরে দৃশ্যমান বাইসেপ, অ্যাব নিয়ে শাহরুখ মোকাবিলা করেছেন... না গল্পটা বলার দরকার নেই। তাহলে শাহরুখ-ভক্তরা ক্রুদ্ধ হতে পারেন। বরং সিনেমাহলে গিয়ে আগে থেকে কোনো ধারণা না করেই তাদের পাঠান দেখা ও পুলকিত হওয়ার সুযোগ দেওয়া উচিত।

চার বছর পর শাহরুখের সিনেমা রিলিজ করছে। ফলে যে দেশে কোটি কোটি শাহরুখ ভক্ত আছেন, সেখানে তাদের ক্রেজ যে ভয়ংকর হবে, তা বলার জন্য বোদ্ধা হওয়ার দরকার পড়ে না। বুধবার রিলিজ করছে পাঠান। সোমবার পর্যন্ত টিকিট বিক্রি হয়েছে চার লাখ ১৯ হাজার। বাহুবলী২ ও কেজিএফ২-এর পরেই রয়েছে পাঠান। মঙ্গলবার বেলাশেষে সেই সংখ্যাটা পাঁচ লাখ ছাপিয়ে যেতেই পারে।

শাহরুখ খান গত ১০ জানুয়ারি পাঠানের ট্রেলার দিয়ে টুইট করেছিলেন। সেই ট্রেলার এখনো পর্যন্ত ৪২ লাখ ভিউ হয়েছে। তেলুগু ও তামিল ট্রেলারও ৫০ লাখ ভিউ হয়েছে। এই ছোট তথ্যই বুঝিয়ে দিচ্ছে পাঠান ও শাহরুখকে নিয়ে মানুষের উন্মাদনার ছবিটা।

আর বক্স অফিস বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রথম পাঁচ দিনেই দুইশ কোটি টাকা তুলে ফেলতে পারবে পাঠান। আর নতুন বছরে বলিউডকে চাঙ্গা করাই নয়, নতুন রেকর্ডও সৃষ্টি করতে পারে এই সিনেমা। ফিল্ম বিশেষজ্ঞ তরন আদর্শ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছেন, প্রথম দিনের কালেকশন দাঁড়াতে পারে ৪০ থেকে ৫০ কোটি টাকা।

বলিউড এখন দক্ষিণের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি ও হলিউডের কড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়েছে। বেশ কিছুদিন হলো খুব বেশি বলিউডি সিনেমা বিপুল সাফল্যের মুখ দেখেনি। প্রযোজক গিরিশ জোহর মনে করছেন, পাঠান বলিউডকে সেই সাফল্য দেবে এবং আত্মবিশ্বাস যোগাবে।

বিতর্কের জের

পাঠানের গান ‘বেশরম রং’ নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে উঠেছিল। দীপিকা পাড়ুকোন এই গানের সঙ্গে গেরুয়া পোশাক পরে নেচেছেন। তারপরই বিজেপি-র নেতা-কর্মীরা আওয়াজ তোলেন, গেরুয়ার তথা হিন্দুত্বের অপমান করা হয়েছে। মধ্যপ্রদেশের মন্ত্রী জানিয়ে দেন, তার রাজ্যে পাঠান রিলিজ করতে দেয়া হবে না। বিভিন্ন জায়গায় পাঠানের মুক্তি আটকে দেওয়ার দাবি ওঠে। এই বিতর্ক সম্ভবত পাঠান সম্পর্কে মানুষকে আরও উৎসাহী করেছে।

একদিন আগেই শাহরুখ আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন। হিমন্ত আশ্বাস দিয়েছেন, আসামে কোনো গোলমাল হবে না। হিমন্ত অবশ্য বলেছেন, তিনি শাহরুখকে চিনতেন না। কারণ, ২০০১ থেকে তিনি বিশেষ সিনেমা দেখেননি। সেই কথা শুনেই শাহরুখ তার সঙ্গে কথা বলতে চান। এবং রাত দুটোয় শাহরুখকে ফোন করে কথা বলেন হিমন্ত।

তবে কয়েকদিন আগে প্রধানমন্ত্রী মোদী জানিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি কর্মীরা যেন সিনেমা নিয়ে কোনো কথা না বলেন। তারা দলের কাজে যেন মন দেন। প্রধানমন্ত্রীর এই কথার পর টিম পাঠান নিঃসন্দেহে বেশ কিছুটা আশ্বস্ত বোধ করছে।

ইত্তেফাক/এএএম