বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

‘আওয়ামী লীগ হাওয়াই মিঠাই, চাপ দিলে চুপসে যাবে’

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ২০:৪০

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, আওয়ামী লীগের অবস্থা এখন হাওয়াই মিঠাইয়ের মতো হয়ে গেছে। দেখতে বড়, কিন্তু ভেতরে ফাঁপা। চাপ দিলেই চুপসে যাবে। সময়মতো বিএনপি সেই চাপ দেবে।

বুধবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘গণতন্ত্র হত্যা’ দিবসে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন ও বিএনপির চেয়াপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ দলের কারাবন্দী নেতাকর্মীদের মুক্তিসহ ১০ দফা দাবিতে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ফেরিওয়ালারা যত কথাই বলুক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় করেছেন বেগম খালেদা জিয়া। প্রবাসীদের কল্যাণে তিনি প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক করেছেন। জিয়াউর রহমান যুব মন্ত্রণালয় ও শিশু মন্ত্রণালয় করেছেন। জনগণের কল্যাণে এমন কোনো সেক্টর নেই যেখানে বিএনপি কাজ করেনি। বিদ্যুতের কথা এলে আপনারা কথায় কথায় খাম্বা খাম্বা করেন, আর বিএনপিকে দোষারোপ করেন। অথচ এই খাম্বা নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের মালিক কাজী নাবীল আহমেদ এখন আপনাদের দলের দুই বারের এমপি। আপনাদের দলের বিশৃঙ্খলা সম্পর্কে আমরা আর কিছু বলতে চাই না। নারায়ণগঞ্জের মেয়র আইভী যা বলেন, আমরা সেটাকে সম্মান জানাই। তার সম্মান রক্ষার্থে আমরা আর নিজেদের থেকে কিছু বলতে চাই না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, অনেক লম্বা লম্বা কথা বলেন, বিএনপিকে নসিহত করেন। অথচ আপনার দলের লোকজনই আপনার কথা শুনে না। আপনি মঞ্চে দাঁড়িয়ে চিৎকার করেন, মাঝে মাঝে রাগ করে নেমেও পড়েন। আপনি আগে নিজের দলের লোকদের নসিহত করেন।

প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, আওয়ামী লীগ বারবার খেলার কথা বলে নিজেরা মাঠে না নেমে প্রশাসনকে খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামায়। প্রশাসনকে বলব আপনারা রাষ্ট্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত। আপনাদের পোশাকে লেখা আছে বাংলাদেশ পুলিশ, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন। কারো প্ররোচনায় অতি উৎসাহিত হয়ে আওয়ামী লীগের হয়ে কাজ করবেন না।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।

ইত্তেফাক/এমএএম