বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০২৩, ১৬ চৈত্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বেটিসকে হারিয়ে শীর্ষস্থান মজবুত বার্সেলোনার 

আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৬:৩১

রাফিনহা এবং রবার্ট লিওয়ানদোস্কির গোলে রিয়াল বেটিসকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে লা লিগায় আট পয়েন্টে এগিয়ে গেছে শীর্ষস্থানে থাকা বার্সেলোনা। ইনজুরির কারণে কয়েক সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন ফরাসি উইঙ্গার ওসমানে ডেম্বেলে। 

আর তাই রাফিনহা নিজেকে প্রমাণের সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগান। ম্যাচের ৬৫ মিনিটে রাফিনহা বার্সেলোনাকে এগিয়ে দেন। তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফেরা লিওয়ানদোস্কি ম্যাচ শেষের ১০ মিনিট আগে ব্যবধান দ্বিগুণ করার পাশাপাশি দলের জয় নিশ্চিত করেন। ৮৫ মিনিটে জুলেস কুন্ডের আত্মঘাতি গোলে বেটিস এক গোল পরিশোধ করে। কিন্তু তা পরাজয় এড়ানোর জন্য যথেষ্ট ছিলনা। ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ বলেন, ‘আমি মনে করি আজ আমরা দারুণ খেলেছি। এ  মাঠে খেলাটা সবসময়ই কঠিন। এই ফলাফলে আমি শুধুমাত্র খুশী না, একইসাথে দলের ক্রমাগত উন্নতিতে আমি আশাবাদী।’

জাভি হার্নান্দেজ

এর আগে তিনটি লিগ ম্যাচেই বার্সেলোনা ১-০ গোলে জয়ী হয়েছিল। এর মধ্যে গত সপ্তাহে কাতালান প্রতিদ্বন্দ্বী জিরোনার বিরুদ্ধে একেবারেই সাদামাটা পারফরমেন্স দেখিয়েছিল বার্সা। কিন্তু কাল আবারো নিজেদের ফর্ম প্রমাণে শুরু থেকেই ব্যস্ত ছিল জাভির শিষ্যরা। বেটিসের শুরুটাও ভাল হয়েছিল। লুইজ হেনরিকের একটি শট ব্লক করে দিয়ে ম্যাচের শুরুতেই বার্সাকে রক্ষা করেছেন আলেহান্দ্রো বালডে। অন্যদিকে লেভার হেড অল্পের জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। পেড্রির শটও বার্সেলোনাকে এগিয়ে দিতে পারেনি। অফসাইডের কারণে রাফিনহার একটি গোল বাতিল হয়ে যায়। দুই অর্ধে দুইবার বেটিস গোলরক্ষক রুই সিলভা পেড্রিকে হতাশ করেন। 

ডি বক্সের ভিতর আবার ভিনিসিয়াসের ফাউলের বিপরীতে রাফিনহা পেনাল্টির জোড়ালো আবেদন করেও সফল হতে পারেননি। দ্রুত নেয়া একটি ফ্রি-কিক থেকে ফ্রেংকি ডি জং বালডের দিকে বল বাড়িয়ে দেন। তরুণ এই মিডফিল্ডারের যোগান দেয়া বলেই রাফিনহা ৬৫ মিনিটে ডেডলক ভাঙ্গেন। লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতা লিওয়ানদোস্কির তিন ম্যাচ পরে ফেরাটা একের পর এক ব্যর্থতায় হতাশায় রূপ নিচ্ছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত আর খালি হাতে ফিরতে হয়নি এই পোলিশ স্ট্রাইকারকে। 

রোনাল্ড আরাউজোর সহায়তায় লা লিগা মৌসুমের ১৪ ও সব মিলিয়ে ২৩তম গোল করেন লেভা। বালডের আরও একটি ক্রস থেকে বদলী খেলোয়াড় আনসু ফাতির হেড অল্পের জন্য বাইরে চলে যায়। ম্যাচ শেষের পাঁচ মিনিট আগে কুন্ডের কারণে আত্মঘাতি গোলের লজ্জা পায় বার্সেলোনা। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে মাঠ ছাড়েন বেটিস মিডফিল্ডার উইলিয়াম কারভালহো।

ইত্তেফাক/জেডএইচ