শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

টঙ্গী-জয়দেবপুর ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন আজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৬:২৩

গাজীপুরবাসীর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশিত টঙ্গী থেকে জয়দেবপুর জংশন পর্যন্ত ডুয়েলগেজ ডাবল লাইনের আজ বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে সকালে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে টঙ্গী থেকে জয়দেবপুর পর্যন্ত অংশের ১১ কিলোমিটার রেলপথে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করবেন বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান।

প্রকল্পসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাওয়া-আসায় সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় ঢাকা-টঙ্গী ও টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশন; কিন্তু এই দুই সেকশনের মধ্যে ঢাকা-টঙ্গী সেকশনে দুটি ডুয়েলগেজ লাইন ও একটি ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন এবং টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে একটি ডুয়েলগেজ লাইন চালু রয়েছে। এ কারণে টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে চাহিদা থাকা সত্ত্বেও বেশি সংখ্যক ট্রেন পরিচালনা করা যাচ্ছিল না। তাই ঢাকা থেকে আরো ট্রেন চলাচল বাড়ানো, ভ্রমণের সময় সাশ্রয়, যাত্রীসেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে ঢাকা-টঙ্গী সেকশনে তৃতীয় ও চতুর্থ ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে ৩৩ দশমিক ৪৮ কিলোমিটার লুপলাইনসহ ১১৬ কিলোমিটার ও চারটি স্টেশন পুনর্নির্মাণ করা হচ্ছে। আর এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছিল ৮৪৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করতে না পারায়  প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয় ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত। এ কারণে প্রকল্প ব্যয় গিয়ে দাঁড়ায় ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকায়।

প্রকল্প পরিচালক নাজনীন আরা কেয়া বলেন, ভারতীয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এফ কন কল্পতরু এ ডাবল লাইনের কাজ বাস্তবায়ন করে। টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে ১১ কিলোমিটার রেললাইন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। ডাবল লাইনে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন উপলক্ষ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

এ বিষয়ে জয়দেবপুর রেল স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম জানান, সিঙ্গেল লাইন থাকার কারণে এতদিন অন্য আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের চলাচলের জন্য জয়দেবপুর এবং ধীরাশ্রম স্টেশনে ট্রেন দাঁড়িয়ে থাকতে হতো। এখন আর কোনো ট্রেনকে অপেক্ষা করে থাকতে হবে না।

ইত্তেফাক/ইআ