মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

নির্বাচনী বিক্ষোভে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ শ্রীলঙ্কার পুলিশের

আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:৩৯

পর্যাপ্ত তহবিলের অভাবে শ্রীলঙ্কায় স্থানীয় সরকার নির্বাচন স্থগিত করায় বিরোধী দল 'ন্যাশনাল পিপলস পাওয়ার পার্টি' এর সমর্থকরা ক্ষুব্ধ। রোববার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দলের শতাধিক সমর্থক বিক্ষোভ করেন। পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করে। আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রোববার টিয়ার গ্যাস ছোড়ার শব্দে ভারী হয়ে ওঠে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো। এদিন বিরোধী দলের হাজার হাজার সমর্থক সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। পুলিশের বাধা ও আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে তারা রাজধানীর প্রধান বাণিজ্যিক এলাকায় প্রবেশের চেষ্টা করে। 

পর্যাপ্ত তহবিলের অভাবে শ্রীলঙ্কায় স্থানীয় সরকার নির্বাচন স্থগিত করায় বিরোধী দল 'ন্যাশনাল পিপলস পাওয়ার পার্টি' এর সমর্থকরা ক্ষুব্ধ।
এই এলাকায় প্রেসিডেন্টের বাসভবনসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবন রয়েছে। বিক্ষোভকারীদের থামাতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে নিরাপত্তা বাহিনী। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে ব্যবহার করা হয় জলকামান। বিক্ষোভকারীরা পাল্টা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে এলাকাটি মুহূর্তেই রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। 

দুই পক্ষের সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন সমর্থক আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, রনিল বিক্রমাসিংহে জনগণের দ্বারা নির্বাচিত হননি। তাই তিনি কোনোভাবেই প্রেসিডেন্ট হতে পারেন না। চোর, ডাকাত, মাদক ব্যবসায়ী ও অপরাধীদের কাছ থেকে ১৩৩ ভোট পেয়ে ক্ষমতায় আসেন তিনি। জনগণের সমর্থন তার নেই।  

রনিল বিক্রমাসিংহে জনগণের দ্বারা নির্বাচিত হননি।

করোনা মহামারী, ত্রুটিপূর্ণ কর ব্যবস্থা, বিশ্বজুড়ে জ্বালানির দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের কারণে পর্যটন ব্যবসা ভেঙে পড়ায় গত বছর থেকে চরম অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা। দেশের বৈদেশিক ঋণ এখন ৫১ বিলিয়ন ডলার। 

২০২৭ সালের মধ্যে কমপক্ষে ২৮ বিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে হবে। কিন্তু দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধের মতো প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি করতে পারছে না দেশটি। সংকট উত্তরণে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে আলোচনা চলছে।  

করোনা মহামারী, ত্রুটিপূর্ণ কর ব্যবস্থা, বিশ্বজুড়ে জ্বালানির দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের কারণে পর্যটন ব্যবসা ভেঙে পড়ায় গত বছর থেকে চরম অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে শ্রীলঙ্কা।

এ অবস্থায় পর্যাপ্ত তহবিলের অভাবে আগামী মাসে অনুষ্ঠিতব্য স্থানীয় সরকার নির্বাচন পিছিয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে শ্রীলঙ্কা। দেশের নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার নির্বাচন আগামী ৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত করে আগামী ৩ মার্চ নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হবে। এমনকি নির্বাচন আয়োজনের জন্য পর্যাপ্ত তহবিল বরাদ্দের জন্য সংসদের স্পিকারের কাছে আবেদন করা হবে বলেও জানা গেছে।

ইত্তেফাক/ডিএস