শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ইবির পাঁচ ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার, প্রভোস্টকে সরানোর নির্দেশ

আপডেট : ০১ মার্চ ২০২৩, ১৫:১১

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দেশরত্ন শেখ হাসিনা হলে রাতভর ছাত্রী নির্যাতন ও ভিডিও ধারণের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেত্রী সানজিদা চৌধুরী অন্তরাসহ পাঁচ ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কারের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে হলের প্রভোস্টকে সরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১ মার্চ) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

ছাত্রলীগ নেত্রী অন্তরা, ছাত্রলীগকর্মী তাবাসসুম, মীম, উর্মী ও মোয়াবিয়া।

ওই পাঁচ ছাত্রী হলেন, সানজিদা চৌধুরী অন্তরা (পরিসংখ্যান বিভাগ), হালিমা আক্তার ঊর্মি (চারুকলা বিভাগ), ইসরাত জাহান মিম (আইন বিভাগ), তাবাসসুম ইসলাম (ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ) ও মুয়াবিয়া জাহান (ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ)।

ফুলপরীকে নির্যাতনের ঘটনায় ভিডিও ধারণ করা হয় হালিমার মোবাইলে। সেই মোবাইল দ্রুত উদ্ধার করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের। এছাড়া ফুলপরী যাতে দ্রূত শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে পারে সেটা নিশ্চিতের আদেশও দেওয়া হয়।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন রিটকারী আইনজীবী গাজী মো. মহসীন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক।

উল্লেখ্য, শেখ হাসিনা হলের ভুক্তভোগী ছাত্রীর রুমে গেস্ট হিসেবে ওঠেন প্রথম বর্ষের এক ছাত্রী। ছাত্রলীগ নেত্রী তাবাসসুমকে না জানিয়ে হলে ওঠায় ওই ছাত্রীকে তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন। কিন্তু এতে কর্ণপাত না করায় ক্যাম্পাসে তাকে বকাবকি করেন ছাত্রলীগ নেত্রী তাবাসসুম। এরপর মধ্যরাতে বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ছাত্রলীগের সহসভাপতি সানজিদা হলের গণরুমে ডেকে নিয়ে তার ৫/৬ সহযোগীসহ রাতভর ওই ছাত্রীর ওপর চালায় পৈশাচিক নির্যাতন। অশালীন ভাষায় গালিগালাজ, আলপিন ফুটিয়ে শরীরে ক্ষতসৃষ্টি ও আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করেন ছাত্রলীগ নেত্রী সানজিদা। ঘটনাটি প্রকাশ করলে তাকে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়।

ইত্তেফাক/এসকে