মঙ্গলবার, ২১ মার্চ ২০২৩, ৭ চৈত্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

প্রাক-বাজেট আলোচনা

প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় কর মওকুফের দাবি

আপডেট : ১৫ মার্চ ২০২৩, ০২:২৫

দশ বছরের জন্য প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সব প্রতিষ্ঠানের কর মওকুফের প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ প্লাস্টিক গুডস ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিপিজিএমইএ)। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে প্রাক-বাজেট আলোচনায় সংগঠনটির সভাপতি শামীম আহমেদ এমন প্রস্তাব করেছেন।

সংগঠনটি বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সব প্রতিষ্ঠানের অগ্রিম আয়কর না নেওয়ার সুপারিশ, রপ্তানি খাতের সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানের করপোরেট কর ১০ শতাংশ করা, পেট্রোকেমিক্যাল পণ্যে কাঁচামাল আমদানিতে সঠিক দাম নির্ধারণ করা এবং প্লাস্টিক খেলনাসামগ্রীতে ভ্যাট থেকে অব্যাহতির দাবি জানায়। 

বাংলাদেশ ফার্নিচার এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন তাদের প্রস্তাবে আংশিক রপ্তানিমুখী শিল্পে ব্যাংক গ্যারান্টির সমপরিমাণ অর্থের বিপরীতে আমদানি করা কাঁচামাল ও উপকরণের জন্য শুল্ক বন্ড সুবিধা, ফার্নিচারের আমদানি করা কাঁচামালকে রেগুলেটরি ডিউটি এবং সাপ্লিমেন্টারি ডিউটি থেকে অব্যাহতির প্রস্তাব দিয়েছে তারা। এছাড়া ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে করপোরেট কর কমিয়ে বস্ত্র খাতের মতো নির্ধারণ করার প্রস্তাব দিয়েছে সংগঠনটি।

বাংলাদেশ গার্মেন্টস এক্সেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএপিএমইএ) শিল্পপ্রতিষ্ঠানে বন্ড লাইসেন্সের মেয়াদ পাঁচ বছর করা ও বন্ডেড প্রতিষ্ঠানের আমদানি প্রাপ্যতা তিন বছরে উন্নীত করার দাবি করে।

এছাড়া স্থানীয় ক্রয় ভ্যাটের আওতা বহির্ভূত রাখা, নিয়মিত বন্ডের সুবিধা দেওয়া, স্থায়ী/অস্থায়ী আন্তঃবন্ড স্থানান্তরের ব্যবস্থা করা ও ব্যক্তি পর্যায়ে করমুক্ত আয়সীমা ৪ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব দিয়েছে বিজিএপিএমইএ।

বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুডস এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএফএফইএ) হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রপ্তানির ওপর বিদ্যমান ১ শতাংশ উৎসে কর থেকে শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ করা ও অগ্রিম আয়কর থেকে অব্যাহতি চেয়েছে। বর্তমানে অগ্রিম আয়কর ১০ শতাংশ নির্ধারিত আছে। এছাড়া প্রক্রিয়াজাত করা হিমায়িত রপ্তানিকারক কারখানায় সরাসরি ক্রয়কৃত চিংড়ি ও মাছ ক্রয়ে উেস কর শূন্য করার দাবি জানিয়েছে বিএফএফইএ।

বাংলাদেশ সোসাইটি ফর দ্যা চেঞ্জ অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি নেক্সাস (বি-স্ক্যান) প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের করমুক্ত আর সীমা সাড়ে ৪ লাখ টাকা থেকে ৬ লাখ টাকায় উন্নীত করার প্রস্তাব দিয়েছে। বাড়িভাড়ায় মাসে ৫০ হাজার টাকা করছাড়ের বিধান, গাড়ি আমদানিতে ৫০ থেকে ১০০ শতাংশ আমদানি কর মওকুফ, মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ব্যক্তিগত মোটরযানে শতভাগ নিবন্ধন ফি মওকুফ ও পরিবারে প্রতিবন্ধী থাকলে ৫০ শতাংশ ফি মওকুফের প্রস্তাব দিয়েছে সংগঠনটি। 

 

ইত্তেফাক/ইআ