বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

মেয়াদ শেষেও হচ্ছে না ভোট

১৫ পৌরসভায় অনির্বাচিত প্রশাসকরাই বারবার দায়িত্বে

আপডেট : ২০ মার্চ ২০২৩, ০৮:০২

আইনের বিধান না মেনে বারবার প্রশাসক বদল করে অনির্বাচিত ব্যক্তিদের দ্বারা চলছে বেশকিছু পৌরসভা। আইনে পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষে নির্বাচিত প্রতিনিধির দায়িত্বের অবসান ঘটানো হচ্ছে। কিন্তু একজন প্রশাসকের মেয়াদ ১৮০ দিন হলেও পরে আরেক জনকে নিয়োগ দিয়ে চলছে পৌরসভা। এতে রাজনৈতিক মহলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিচ্ছে। ইতিমধ্যে বেনাপোল পৌরসভার নির্বাচন দাবিতে কয়েক হাজার মানুষের মিছিল হয়েছে।

আইন অনুযায়ী একজন প্রশাসক সর্বোচ্চ ১৮০ দিন থাকতে পারেন। এ সময়ের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু এ ক্ষেত্রেও সেই মামলা মোকদ্দমার দোহাই দিয়ে অন্তত ১৫টি পৌরসভায় প্রশাসক নির্ধারিত সময়ের থেকে বেশি সময় ক্ষমতা ভোগ করছেন। এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিচ্ছে। কারণ নির্বাচিত ব্যক্তিরা যেখানে সময়ের চেয়ে বেশিদিন থাকতে পারেন না—সেখানে অনির্বাচিত ব্যক্তিরা কীভাবে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় থাকছেন। এটিকে আইনের বরখেলাপ বলছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, আইন সবার জন্য সমান হলে নির্বাচিত ব্যক্তিদের জন্য এক রকম আর অনির্বাচিতদের জন্য আরেক রকম হবে কেন। এটি সংবিধানের মৌলিক অধিকারের পরিপন্থিও বটে।

এদিকে মেয়াদ শেষ হলেও বেশকিছু পৌরসভার নির্বাচন কেন দেওয়া যাচ্ছে না সে বিষয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সঙ্গে বৈঠকে বসতে আগ্রহী নির্বাচন কমিশন। স্থানীয় সরকার বিভাগের নির্দেশনা ছাড়া কমিশন একক সিদ্ধান্তে স্থানীয় সরকার নির্বাচন তপশিল দিতে পারে না মর্মে আইনে বাধা আছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব ইব্রাহীম হোসেন গতকাল রবিবার ইত্তেফাককে বলেন, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ইউনিয়ন ও উপজেলা পরিষদের সীমানার সঙ্গে পৌর সীমানা নিয়ে জটিলতা থাকায় তা নিয়ে মামলা চলছে। ফলে এগুলোর নির্বাচন করা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে কী করণীয় তা নিয়ে শিগিগর কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে একটি ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে বলে অভিমত দেন স্থানীয় সরকার সচিব।

স্থানীয় সরকার (পৌরসভা আইন) অনুযায়ী পাঁচ বছরের মেয়াদান্তে সরকারি কর্মচারীসহ সরকার যে কোনো ব্যক্তিকে প্রশাসক নিয়োগ করতে পারবেন মর্মে বিধান রেখে আইন সংশোধন করে। আইন সংশোধন করার মূল উদ্দেশ্য ছিল যে, কেউ যেন মেয়াদ শেষে পদে থাকতে না পারেন। অতীতে একবার নির্বাচিত হলেই পরবর্তীতে ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য মামলা মোকদ্দমা করে দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকতে পারতেন কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকতে না পারলেও প্রশাসক হিসেবে অনেকেই আইনের সীমার বাইরে বেশি সময় ধরে প্রশাসক হিসেবে পৌরসভা দখলে রাখছেন। অবশ্য এ ক্ষেত্রে একই ব্যক্তিকে না রেখে ১৮০ দিন পরপর প্রশাসক পালটে নতুন নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

গুরুত্বপূর্ণ বেনাপোল স্থলবন্দরের পৌরসভার প্রথম নির্বাচন হয়েছিল ২০১১ সালের ১২ জানুয়ারি। ২০১৬ সালে জানুয়ারিতে মেয়াদ শেষ হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ১৮০ দিনের জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়। এখন সেই মেয়াদ শেষে আবার সহকারী কমিশনার (ভূমি)কে নিয়োগ করা হয়েছে। এভাবে নির্বাচন না হওয়া অন্তত ১৫টি পৌরসভা চলছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব অবশ্য আশা প্রকাশ করে বলেছেন, জটিলতা যাই থাক, নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে এর একটি সমাধান সূত্র বের করা সম্ভব হবে।

ইত্তেফাক/ইআ