বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

৬ মাস ধরে নিলাম বন্ধ

২০ কোটি টাকার রাজস্ব বঞ্চিত মোংলা কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ০৫ মে ২০২৩, ১৯:২৮

টানা ৬ মাস ধরে নিলাম বন্ধ থাকায় প্রায় ২০ কোটি টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে মোংলা কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর নতুন নিলামকারী প্রতিষ্ঠান নিয়োগের ক্ষেত্রে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে বন্ধ রয়েছে কাস্টমসের এ নিলাম কার্যক্রম। 

জানা যায়, নভেম্বর থেকে গাড়িসহ অন্যান্য মালামালের নিলাম কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। মূলত নভেম্বরে নিয়োগকৃত প্রতিষ্ঠান আল আমিন ট্রেডার্সের নিলাম মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপর নতুন করে নিলামকারী প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিতে কার্যক্রম শুরু হয়। নতুন নিলাম প্রতিষ্ঠান নিয়োগের জন্য ২৩ জানুয়ারি দরপত্র আহ্বান করা হয়। তখন দরপত্রে অংশগ্রহণকারীদেরকে বাঁধা দেওয়াসহ জোর করে তাদের দরপত্রের মূল্যের হার জেনে নিয়ে মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজ কমমূল্যে কমিশন রেট দাখিল করে। মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি শহীদুল ও আনোয়ার নিলামে অংশগ্রহণ করাদের বাঁধা দিয়ে সিডিউল ড্রপ করতে নিষেধ করেন। 

এ নিয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। পরে বাঁধা দেওয়া মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজসহ মোট ১১টি প্রতিষ্ঠান সিডিউল ড্রপ করেন। এর আগে সকলকে জিম্মি করে রেট জেনে নিয়ে তারাই (মেসার্স রেডি ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজ) সবচেয়ে কম রেট দেয়। ফলে ওই প্রতিষ্ঠানের (মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজ) অভিজ্ঞতা, শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ অন্যান্য কাগজপত্র ও সনদ চাইলে তারা তা দিতে ব্যর্থ হয়। তাই তাদের ওই দরপত্রটি বাতিল করা হয়। 

পরবর্তীতে ২৮ মার্চ নতুন করে আবারও দরপত্র আহ্বান করা হয়। সেখানে শর্ত দেওয়া হয়ে যে, দরপত্রে বাঁধা ও ভুয়া কাগজপত্র দাখিল করলে তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা করা হবে। এ শর্তে ৬টি প্রতিষ্ঠান দরপত্রে অংশ নেয়। এবারও মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজ তাদের সিডিউল জমা দিয়েছে। কিন্তু ৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দু’টি প্রতিষ্ঠানের রেট ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঠিক থাকায় তাদের নিয়ে পযার্লোচনা চলছে। এই দু’টির মধ্যেই একটিকে নিলামকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। সিডিউল ড্রপ করার পর থেকে মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজের লোকজন কাস্টমসের সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মকতার্দেরকে নানাভাবে হুমকি-ধামকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

মেসার্স রেডিও ইলেকট্রিক এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. মাজহারুল করিমের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

মোংলা কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন বলেন, আগে প্রতিমাসে অন্তত দু'টি করে নিলাম হতো। তাতে প্রতি মাসে গাড়িসহ বিভিন্ন মালামালের নিলাম দেওয়া সম্ভব হতো। নিলাম বন্ধ থাকায় গাড়িসহ নানা পণ্যের জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে বন্দরে। নিলামের অপেক্ষায় রয়েছে ৫শতাধিক আমদানিকৃত রিকন্ডিশন গাড়ি, বিভিন্ন পণ্যবোঝাই ১৫০ কন্টেইনার ও একটি ড্রেজার। ৬ মাস ধরে নিলাম বন্ধ থাকায় প্রায় ২০ কোটি টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছেন মোংলা কাস্টমস হাউস। 

মোংলা কাস্টমস হাউসের কমিশনার মোহাম্মদ নেয়াজুর রহমান বলেন, নিলামকারী নিয়োগ প্রক্রিয়া শীঘ্রই শেষ হবে। ফলে দ্রুতই পুনরায় নিলাম কার্যক্রম শুরু হবে।

 

ইত্তেফাক/এবি