সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ৯ আশ্বিন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

ফুরফুরে মেজাজে মাহি

আপডেট : ১৮ মে ২০২৩, ০৯:২৪

গেল ঈদে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচারিত এবং পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত নাটকগুলো এখনো দর্শক বেশ আগ্রহ নিয়ে উপভোগ করছেন। এ প্রজন্মের আলোচিত অভিনেত্রী সামিরা খান মাহি অভিনীত কয়েকটি নাটকও দর্শক বেশ আগ্রহ নিয়েই উপভোগ করছেন। 

গত ঈদে মাহি ভক্তরা যেসব নাটকে তার অভিনয় দেখে বেশ উচ্ছ্বসিত হয়েছেন এবং তার অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে তুহিন হোসেনের ‘রাতের রানী’, রাফাত মজুমদার রিংকুর ‘ঈদ সেলামি’, ‘বাই মিসটেক’, মেহেদী হাসান হৃদয়ের ‘ঠাডা’, হাসান রেজাউলের ‘চিত্কার’, মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘আক্ষেপ’।

এসব নাটকে মাহির অভিনয় বেশ প্রশংসিত হয়। একজন ভার্সেটাইল অভিনেত্রী হিসেবে এরইমধ্যে বিভিন্ন নাটকে চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের কাছ থেকে বেশ সাড়া পেয়েছেন।    

                 

মাহি অল্প সময়ে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন, তিনি অভিনয়ের দুনিয়ায় এসেছেন একজন সু-অভিনেত্রী হিসেবেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে। ঢাকায় ঈদ উদ্যাপন করে এরইমধ্যে ১৫ দিনের ছুটিতে লন্ডন গেছেন মাহি। সেখানে তার ভাই টুটুল থাকেন। সেখানে নিজের ইচ্ছেমতো ঘুরে বেড়ানোর পর ২৪ মে দেশে ফিরবেন বলে জানান তিনি। ফিরে এসেই তিনি মিফতাহ আনান, রাফাত মজুমদার রিংকু সহ আরো বেশ কয়েকজন নির্মাতার নাটকে অভিনয় করবেন। 

ঈদের কাজ, লন্ডনে ঘুরে বেড়ানো এবং নিজের অভিনয় প্রসঙ্গে সামিরা খান মাহি বলেন, ‘গত ঈদে যে কাজগুলো প্রচারিত হয়েছে বলা যায় প্রতিটি কাজের জন্যই সত্যিই ভীষণ সাড়া পেয়েছি। ঈদে কাজগুলো দর্শক যে প্রবল আগ্রহ নিয়ে উপভোগ করেছেন তা আমি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিশেষভাবে লক্ষ করেছি। চেষ্টা করেছি প্রতিটি গল্পে নিজেকে নতুন রূপে উপস্থাপন করতে। পরিচালকরাও আমাকে সহযোগিতা করেছেন। এই মুহূর্তে লন্ডনে আছি আমি আমার ভাইয়ের কাছে। এখানে কিছুদিন ঘুরে বেড়াব। বলা যায় রিল্যাক্স মুডে আছি। ফিরে এসেই যথারীতি আবারও কাজে ব্যস্ত হয়ে উঠব। সে ক্ষেত্রে আমার চেষ্টা থাকবে ভালো গল্পের নাটকে অভিনয় করা।’  

সামিরা খান মাহির বাবা ফজলুর করিম, মা আফরোজা বেগম। মায়ের অনুপ্রেরণাতেই মূলত অভিনয়ে মাহি আরো এগিয়ে যাবার সাহস পান। তার দুই বোন পলি, মিলিও তাকে সাহস দেন। এস আর মজুমদার সহ আরো বেশ কয়েকজন নির্মাতার নাটকের কাজ শেষ হয়ে আছে। যেগুলো আগামী ঈদে প্রচার হবে বিভিন্ন চ্যানেলে।

ইত্তেফাক/কেকে

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন