শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ডায়াবেটিস পরীক্ষার আওতায় আসছে ১০ শহরের বাসিন্দা

আপডেট : ২৪ মে ২০২৩, ০১:৩৯

দেশের ৪৩ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগী জানে না তারা এই রোগে ভুগছে। ডায়াবেটিসের কারণে হার্ট বা কিডনির পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার পর এই রোগ শণাক্ত হয়। তাই দেশের ১০টি শহরের ১০ লাখ মানুষকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও ডায়াবেটিস বিষয়ে সচেতন করতে শুরু হচ্ছে ‘কান্ট্রি চেঞ্জিং ডায়বেটিস’ প্রকল্প।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, বাংলাদেশ ডায়াবেটিস সমিতির সেন্টার ফর গ্লোবাল হেলথ রিসার্চ ও জাইকার যৌথ উদ্যোগে আগামী দুই বছরে দেশের ১০ লাখ ডায়াবেটিস রোগী পরীক্ষা-নিরীক্ষার আওতায় আসবে। এই লক্ষ্যে তৈরি করা হয়েছে একটি মোবাইল অ্যাপ। গতকাল মঙ্গলবার বারডেম হাসপাতালের অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ তথ্যের কথা জানান বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সেন্টার ফর গ্লোবাল হেলথ রিসার্চ প্রকল্পের পরিচালক ডা. বিশ্ববিজৎ ভৌমিক।

 অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘কান্ট্রি চেঞ্জিং ডায়াবেটিস’ একটি পাইলট প্রকল্প, যেখান থেকে সচেতনতা বাড়াতে ডায়াবেটিস সম্পর্কে মানুষকে জানতে হবে এবং জানাতে হবে। কান্ট্রি চেঞ্জিং ডায়াবেটিস প্রকল্পের আওতায় আগামী আগস্ট মাস থেকে দেশের আটটি বিভাগীয় শহর এবং গোপালগঞ্জ ও কক্সবাজার শহরে ডায়াবেটিস নির্ণয় ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিতে যাবে একটি করে গাড়ি। মোবাইল ডায়াবেটিস সেন্টার নামের এই গাড়িতে ডায়াবেটিস ছাড়াও চোখ, দাঁত, আলট্রাসনোগ্রাম, লিপিড প্রোফাইলসহ বেশ কিছু স্বাস্থ্য পরীক্ষা বিনা মূল্যে করানো হবে। যাদের ডায়াবেটিস শণাক্ত হবে, তাদের মেডিক্যাল কলেজ, ডায়াবেটিক সমিতি বা নিকটতম হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া হবে।

ডা. বিশ্বজিৎ বলেন, ‘ডায়াবেটিসের কারণে স্ট্রোকের ঝুঁকি ৬ গুণ, হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি ২-৩ গুণ, অন্ধত্বের ঝুঁকি ২৫ গুণ, কিডনি নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি ৫ গুণ ও গ্যাংরিনে পা কেটে ফেলার ঝুঁকি ২০ গুণ বেড়ে যায়। শুরুতে ডায়াবেটিস শণাক্ত হলে এবং তা নিয়ন্ত্রণে থাকলে অকালমৃত্যু ঠেকানো সম্ভব। মানুষ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে চায় না। এই প্রকল্পের আওতায় আমরাই মানুষের কাছে যাব।’ এই প্রকল্পের আওতায় ডায়াবেটিসের ঝুঁকি জানিয়ে দিতে একটি অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে।

‘ডিআরসি’ (ডায়াবেটিস রিস্ক ক্যালকুলেটর) নামে এই অ্যাপ রক্ত পরীক্ষা ছাড়াই বলে দেবে কোনো ব্যক্তি ডায়াবেটিসের কতটা ঝুঁকিতে আছে। নিবন্ধনকারীর ওজন কত হওয়া উচিত এবং সেই অনুপাতে তাকে দিনে কত ক্যালরি খাবার খেতে হবে—তা-ও বলা আছে অ্যাপে। অ্যাপটি বিনা মূল্যে নিবন্ধনকারীর উপযোগী ডায়েট চার্ট করে দেবে। এই অ্যাপের মাধ্যমে কত মানুষ ডায়াবেটিসের ঝুঁকিতে আছে, কত জন আক্রান্ত, কত জন চিকিৎসা পাচ্ছে, কতসংখ্যকের ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, কতসংখ্যকের অন্য জটিলতা দেখা দিয়েছে, সে সম্পর্কে তথ্য থাকবে। ফলে অ্যাপটি ডায়াবেটিস নজরদারির পদ্ধতি তৈরিতেও সহায়তা করবে।

ইত্তেফাক/ইআ