সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

দেশের বিরুদ্ধে কেউ কথা বললে বিএনপি আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায়: নাছিম

আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৩:০০

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না তারা বিরাজনীতিকরণে বিশ্বাস করে। এরা সাম্প্রদায়িক, দুর্নীতিবাজ ও সন্ত্রাসী। এ যাবত কালে দেশের কল্যাণে বিএনপি কোন কাজ করেছে বলে দেশের মানুষ দেখেনি। এ গোষ্ঠী সব সময় দেশের ভিতর ও বাহিরে ষড়যন্ত্র করে। কোন দেশ বা ব্যক্তি যদি আমাদের দেশের বিরুদ্ধে কথা বলে তাহলে এরা আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায়। দেশের মর্যাদা অটুট থাকুক তা বিএনপি জামাত কখনোই চায়না। 

রবিবার বিকালে মৌলভীবাজার শহীদ মিনার চত্ত্বর মাঠে মৌলভীবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বিএনপি হল খুনির দল। এরা পাকিস্তানি দালাল। এরাই সাঈদী, নিজামী, কাদের মোল্লাদের রাজনীতিতে পুনর্বাসন করেছে। এসব ঘাতক ও যুদ্ধাপরাধীদের নিয়ে বিএনপি সরকার গঠন করে বাঙালি জাতিকে কলঙ্কিত করেছিল। আজকে তারা আবার দেশ-বিরোধী শক্তিদের নিয়ে দেশের ভিতরে ও বাহিরে ষড়যন্ত্র করছে। তারা বিদেশি প্রভুদের কাছে দেশের বিরুদ্ধে নালিশ করে। লবিস্ট নিয়োগ করে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে। 

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার জন্য দীর্ঘ লড়ায় সংগ্রাম করেছেন। এই লড়াই ছিলো আপোষহীন ও মৃত্যুর ভয়কে উপেক্ষা করে। এ লড়াই ছিল বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের লড়াই। আমরা সব বাধা উপেক্ষা করে আত্মমর্যাদাশীল জাতি হিসেবে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে চাই। আমাদের এই লড়াই সংগ্রামে বিশ্বাসঘাতকরা বারবার বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। তারা বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে। এরা মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের বিপক্ষে গিয়ে পাকিস্তানী এজেন্ট হিসেবে কাজ করেছে। এই গোষ্ঠী চায়নি কখনো আমরা বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াই।

নাছিম বলেন, বিএনপি জামাতের একমাত্র উদ্দেশ্য হলো বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানো। এরা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি। এর জন্য ঘাতকের দলেরা জাতির পিতা ও তার পরিবারের ১৮ জন সদস্যকে অত্যন্ত নির্মমভাবে হত্যা করে। তারা মহান মুক্তিযুদ্ধে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতেই এই নির্মম হত্যাকাণ্ড চালায়। এরা চেয়েছিল বাংলাদেশ থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে পুরাপুরি ধ্বংস করতে। এরা পবিত্র সংবিধানকে কলঙ্কিত করেছিল। 

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা হলেন সেই শক্তি যেই শক্তির বলে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দীর্ঘ ২১ বছর লড়াই সংগ্রাম করে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে এনেছেন। যাদের সাহসে তিনি সারা বাংলাদেশ ঘুরে বেড়িয়েছেন। বার বার মৃত্যুকে জয় করে আপনাদের শক্তিতে বলিয়ান হয়ে সকল বাধা মোকাবেলা করে জনগণের  সমর্থনে তিনি ক্ষমতায় এসেছেন। ক্ষমতায় এসে তিনি ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স বাতিল করেছেন, জাতির পিতার হত্যাকারীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করেছেন।  

স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বাহাউদ্দিন নাছিম  বলেন, আগামী দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে যখন দেশের মানুষ ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে তখনই একটি অশুভ শক্তি নির্বাচন বানচাল করার জন্য সব ষড়যন্ত্র করছে। এরা চায় দেশের গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা নষ্ট হোক, দেশ ধ্বংস হয়ে যাক। গণতন্ত্র নিয়ে এদের কোন মাথা ব্যাথা নেই। এরা চায় দেশকে তালেবানি রাষ্ট্রে পরিণত করতে। এই নির্বাচন যারাই বানচালের চেষ্টা করবে তাদের আমরা মানুষকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করব। আমরা আমাদের বাংলাদেশকে কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর হাতে তুলে দিবোনা।

মৌলভীবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ নজমুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক রাব্বির সঞ্চালনায় সম্মেলন উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মিসবাহুর রহমান, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোবাশ্বের চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ.ফ.ম মাহবুবুল হাসান, উপ প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

ইত্তেফাক/এমএএম