রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

সড়ক দুর্ঘটনায় পাঁচ জনের মৃত্যু

আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০২:২৭

বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। রবি ও শনিবার এসব দুর্ঘটনা ঘটে। আমাদের প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর।

বাগেরহাট: বাগেরহাটে বাস চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন মিজান জমাদ্দার (৩৫) ও রাব্বি খান (২৫)। রবিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বাগেরহাট-পিরোজপুর মহাসড়কের বাগেরহাট সদর উপজেলার বৈটপুর গ্রামের চাড়ারঘর নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় আরও দুই জন গুরুতর আহত হয়েছেন। কাটাখালি হাইওয়ে থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, খুলনা থেকে বরিশালের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা ধানসিঁড়ি পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস দক্ষিণবাংলা চারারঘর নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা মোটরসাইকেল ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় ঐ হতাহতের ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। মোটরসাইকেলকে চাপা দেওয়া বাসটি আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান ঐ কর্মকর্তা।

শ্রীবরদী (শেরপুর): শ্রীবরদীতে দ্রুতগতির মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তাল গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিকালে উপজেলার তাতিহাটি ইউনিয়নের ষাইটকাকড়া কেরানীবাড়ি মোড় সংলগ্ন রাস্তার ওপর এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দুই জন ডিগ্রি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। নিহতরা হলেন উপজেলার বালুচার সিংগারভিটা গ্রামের ফকির আলীর ছেলে লাভলু মিয়া (১৮) ও ঝিনাইগাতী উপজেলার কারাগাঁও গ্রামের নুরুজ্জামানের ছেলে মেহেদী (১৯)। দুর্ঘটনায় আবু হানিফ আবির (১২) নামের একজন আহত হয়েছে। দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ কাইয়ুম খান সিদ্দিকী।

থানার অফিসার ইনচার্জ কাইয়ুম খান সিদ্দিকী জানান, ঘটনাস্থল থেকে লাশ ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। নিহতের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ): লরি চাপায় এক চালকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত হলো গৌরীপুর উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের দাড়িয়াপুর গ্রামের মো. সেলিম মিয়ার ছেলে জিদান (২০)। সে পেশায় একজন লড়িচালক। শনিবার বিকালে নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার বেখৈরহাটি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতের প্রতিবেশী শহিদ খান জানান, জিদান ছোটবেলা থেকেই দাড়িয়াপুর গ্রামে তার নানি মালেকা বানুর কাছে থাকত। সে দাড়িয়াপুর গ্রামের আলমের লড়ি চালাত। শনিবার বিকালে সে ও মোস্তফা মাটি আনতে দুটি লড়ি নিয়ে কেন্দুয়া উপজেলার বেখৈরহাটি গ্রামে যায়। এ সময় মোস্তফার গাড়িটি একটি গর্তে আটকে গেলে জিদান সেটি উঠাতে যায়। এক পর্যায়ে লড়ির সামনের অংশের আংটা ভেঙে ইঞ্জিন উলটে গেলে জিদান চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। 

গৌরীপুর থানার ওসি মাহমুদুল হাসান জানান, ঘটনাস্থল নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানার অন্তর্গত। নিহতের লাশ বাড়িতে আনার পর গৌরীপুর থানার পুলিশ প্রাথমিক তথ্য সংগ্রহ করেছে।

ইত্তেফাক/এমএএম