রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

সিনিয়ররাই আমাকে অভিনয় শিখিয়েছে: কেয়া পায়েল

আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৮:৪১

টিভি নাটকে এখন দর্শক বিচারে ঈর্শ্বনীয় অবস্থানে রয়েছেন অভিনেত্রী কেয়া পায়েল। খুব বেশি দিনের ক্যারিয়ার না হলেও অল্প সময়ের ভেতরেই মন কেড়েছেন তিনি দর্শকের। সম্প্রতি নির্মাতা জাকারিয়া সৌখিনের নতুন কিছু কাজ করলেন। শুটিংয়ের কাজে অবস্থান করছেন ঢাকার বাইরে।

কেয়া পায়েল বলেন, ‘অভিনয়ের ক্ষেত্রে মানুষের এত ভালোবাসার যোগ্য হয়তো আমি নই। কারণ আমি পুরোটা ভালোবাসা থেকেই অভিনয় করি। আমার সিনিয়ররাই আমাকে অভিনয় শিখিয়েছে। তারাই আমার শিক্ষক। অপূর্ব ভাইয়া, জোভান ভাইয়া বা তৌসিফ ভাইয়া থেকে শুরু করে সবার কাছ থেকেই আমি কাজ শিখেছি। ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের হিরোকে এত ভাইয়া বলে বোধহয় আমিই ডাকি! আর অভিনয়ের ক্ষেত্রে অনস্ক্রিন খুব সাবলীল থাকার চেষ্টা করি বলেই দর্শকরা হয়তো পছন্দ করে।’

তবে অনলাইন মাধ্যমে সিঙ্গল নাটকে কেয়া পায়েলের এই জনপ্রিয়তার কারণ হিসেবে অনেকেই তার সাথে তৌসিফের জুটির বিষয়টাই বলছেন। যদিও কেয়া অনেকের সাথে জুটি বেঁধেই সফল। সম্প্রতি এই জুটির বেশ কিছু কাজ ভিউ দৌড়ে বেশ এগিয়ে। এছাড়া সিনিয়র বা কেয়া পায়েলের সমসাময়িক অনেকেই চলচ্চিত্র বা ওটিটির ওয়েব সিরিজে সম্পৃক্ত হলেও এখনও সেদিকে খুব বেশি ব্যস্ত থাকতে দেখা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে কেয়া পায়েল বলেন, ‘আসলে ওটিটিতে বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করেছি। কিছু বড় প্রজেক্টে কথাও চলছে। কিন্তু বেশ কজন নির্মাতার সাথে কাজের একটানা কাজ করছি বলে শিডিউল মেলানোটা কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে।’ চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে ২০২৪ সালে প্রথম চলচ্চিত্র আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এ প্রসঙ্গে কেয়া পায়েল বলেন, ‘এখনও কোনো কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। কারণ চলচ্চিত্রটি আমি ভেবে-চিন্তেই করতে চাই। হুটহাট সিদ্ধান্ত নিতে চাই না।’

নির্মাতা জাকারিয়া সৌখিন কেয়া পায়েল প্রসঙ্গে বলেন, ‘পায়েল এ সময়ের খুবই চাহিদাসম্পন্ন ও পরিশ্রমী অভিনেত্রী। ও নিজের চরিত্রের সাথে ডুবে যেতে চায়। এটা আমার ভালো লাগে। আমি মনে করি, ভালো কিছু গল্পের কাজ ধারাবাহিকভাবে করলে ও অনেকদূর যাবে। আমার বেশ কিছু নির্মাণে কেয়া পায়েল কাজ করেছে।’ কেয়া পায়েল বর্তমানে শুটিংয়ের কাজে বাগেরহাটে রয়েছেন। একটা ইনডোর-আউটডোর মিলিয়ে টানা কাজ করছেন তিনি। সামনে ভালোবাসা দিবস ও পরবর্তী। ঈদের কাজের জন্য এখনই একাধিক নির্মাতার অন্যতম চাহিদার নাম কেয়া পায়েল।

ইত্তেফাক/এএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন