মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

আবাহনীর ড্রেসিং রুমে নীরবতা

কিংসের ঘরে সেলফি তোলার হিড়িক

আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৩:৫০

কিংসের মাঠে গিয়ে চার গোল হজম করে আবাহনী নিজেও বিশ্বাস করতে পারছে না কোথা থেকে কি এসে ঝড় বয়ে গেল। ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে থাকা আবাহনীর আনন্দ, বেদনায় রূপ নিল। ড্রেসিং রুমে আবাহনীর খেলোয়াড়দের মধ্যে কোনো কথা নেই। ড্রেসিং রুমে সব খেলোয়াড় নীরব।  দলের আর্জেন্টাইন কোচ আন্দ্রেস ক্রুসিয়ানি ছিলেন খেলেয়োড়দের ম্যাসাজ রুমে। তাকে খবর পাঠালেও তিনি বের হননি। কথা বলবে না বলে জানিয়ে দিলেন। সহকারী কোচ ছিলেন। তিনিও কথা বলবেন না। খেলোয়াড়রাও মুখ ফিরিয়ে নিলেন।

অন্য পাশে তখন বসুন্ধরা কিংসের ড্রেসিং রুমে সোরগোল। সেলফি তোলার হিড়িক চলছে। খেলোয়াড়দের ড্রেসিং রুমে কি হচ্ছে সেই আওয়াজ বাইরে চলে আসছে। আবাহনীর মতো বড় দলকে বড় ব্যবধানে হারানো একটা বাড়তি আনন্দ। কারণ বসুন্ধরা কিংস সম্প্রতি এএফসি কাপ ফুটবলের গ্রুপ পর্ব হতে বিদায় নিয়েছে। সেই হারের ক্ষত শুকায়নি। মন ভালো ছিল না মিগুয়েল, ডরিয়েলটন, রবসন, তারিক কাজী, বিশ্বনাথ ঘোষ, রাকিব হোসেন, সাদ উদ্দিন, সোহেল রানাদের। মন ভালো ছিল না স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজনের। 

ভারতের ওড়িশা এফসির বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরে বিদায় নেওয়া কিংস যেন কাল সন্ধ্যায় স্বাধীনতা কাপের সেমিফাইনালে আবাহনীকে হারিয়ে উজ্জীবিত হয়েছে, সামনের খেলায় এগিয়ে যাওয়ার রসদ পেয়েছে। এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠল টানা চার বার। খেলোয়াড়দের মধ্যে হাসি ফুটেছে। বিদেশি ফুটবলারদের স্ত্রী সন্তান মাঠে নেমে ছবি তুললেন। মাঠের এক কোনায় কিংসের খেলোয়াড়রা স্ট্রেচিং করছেন। অন্যদিকে ড্রেসিং রুম থেকে ফিরলে কথা হয় কোচ অস্কার ব্রুজনের সঙ্গে। ভারতের ম্যাচের পর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন বলে জানালেন অস্কার। এখন ভালো আছেন বললেন কোচ। বললেন, ‘প্রথমার্ধে আমরা কিছুই করতে পারিনি। আবাহনী পুরো ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করেছে। আবাহনী আমাদের চেয়ে বেটার করেছে। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম মাঝমাঠ নিয়ন্ত্রণ না নিতে পারলে হবে সেটা সেটায় আমরা সফল হয়েছি। প্রথম গোলটাই মোড় ঘুরিয়েছে আমাদের।’

বসুন্ধরা খেলোয়াড়রাও মনে করেন আবাহনীর যেসব সুযোগ নষ্ট হয়েছে সেটা তাদের জন্য সুবিধা হয়েছে। আবাহনী যদি গোল আদায় করে ফেলত তাহলে ম্যাচের মোড় ঘুরেও যেতে পারত। সেটা মেনেই নিয়েছেন কিংসের ফুটবলাররা।

প্রায় ৪০ মিনিট পর আবাহনীর ড্রেসিং রুম থেকে খেলোয়াড়রা বের হয়ে আসেন। আবাহনীর আর্জেন্টাইন কোচ আন্দ্রেস ক্রুসিয়ানি সাংবাদিকদের দেখে দাঁড়ায়। ক্রুসিয়ানি জানিয়ে গেলেন যেভাবে সুযোগ মিস হয়েছে তাতে ম্যাচ জেতা যায় না। নিজেরও উপলব্ধি হচ্ছে ভুলটা কোথায়। প্রথমার্ধের উজ্জ্বল আবাহনী দ্বিতীয়ার্ধে কিংসের এক ঝড়েই নিভে উজ্জ্বলতা।

ক্রুসিয়ানি রাখঢাক না করে বলেই দিয়েছেন তার রক্ষণে কী ভুল ছিল। তিনি ভাবছিলেন রক্ষণ সামাল দিতে পারবেন। ভাঙবে না। ক্রুসিয়ানি বললেন,‘আমি ভাবছিলাম রক্ষণে একজন ডিফেন্ডার বাড়াব কিনা। মনে করেছিলাম রক্ষণভাগ পারবে। কিন্তু এভাবে ভেঙে যাবে সেটা ...। আমি দেখি আমি এই ম্যাচ দেখব। কয়েকবার দেখব।’ ক্রুসিয়ানির কাছে ৪ গোলের চেয়ে বড় কথা হচ্ছে কেন এমন হলো। মোহন বাগানও ৫ গোলে হেরেছিল এএফসি কাপে।

ইত্তেফাক/জেডএইচ