বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ইত্তেফাক প্রকাশককে কটুক্তি

ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজকে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির তলব

আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৪:১১

আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলাম মিরাজকে তলব করেছে পিরোজপুর জেলা নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটি। সোমবার (১ জানুয়ারি) স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন পিরোজপুর যুগ্ম জেলা জজ ও দায়রা জজ এবং নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান কে এম মহিউদ্দীন।

রোববার (৩১ ডিসেম্বর) সকালে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির পক্ষ থেকে মিরাজকে তলব করার নোটিশ দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়েছে, আপনি মিরাজুল ইসলাম মিরাজ (উপজেলা চেয়ারম্যান, ভান্ডারিয়া) গত ২৪ ডিসেম্বর পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নের আহজারীয়া মাদ্রাসার মাঠে অনুষ্ঠিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর এক নির্বাচনী জনসভায় দৈনিক ইত্তেফাকের প্রকাশক তারিন ও তার পিতা নৌকা প্রতীকধারী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এবং তার পরিবার নিয়ে আপত্তিকর এবং মানহানীকর বক্তব্য প্রদান করেছেন। সভার ভিডিও রেকর্ডিং ধারণ করে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার করা হয়। ভিডিও রেকর্ডিং অত্র কমিটির কাছে সংরক্ষিত আছে। আপনার এমন কাজ সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা - ২০০৮ এর বিধি ১১(ক) এর লঙ্ঘন হয়েছে মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়।

নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির পক্ষ থেকে মিরাজকে তলব করার নোটিশ

চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, এ অবস্থায় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণবিধি ভঙ্গের কারণে কেন আপনার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশন বরাবর প্রতিবেদন প্রেরণ করা হবে না- এ বিষয়ে আগামী ১ জানুয়ারি সকাল ১১টায় স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ - ১৯৭২ এর ৯১ (ক) নং অনুচ্ছেদের ৫(ক) উপ-অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে আপনাকে আদেশ প্রদান করা হলো।

উল্লেখ্য, এর আগে ভান্ডারিয়া পৌরসভা নির্বাচনে মিরাজুল ইসলাম মিরাজ রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে ঢাকা থেকে আগত সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে স্থানীয় এক সাংবাদিককে উপজেলা চত্বরে টাঙিয়ে পেটানোর হুমকি দিয়েছিলেন। ওই ঘটনায় নির্বাচন কমিশন তদন্ত করে সত্যতা পেয়েছিলো। ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগকে চিঠিও দিয়েছিলো। কিন্তু অদৃশ্য কারণে আজ পর্যন্ত 'বিতর্কিত' মিরাজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণে আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠেন মিরাজ। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ইত্তেফাকের প্রকাশককে নির্বাচনী প্রচারণায় আপত্তিকর, কুরুচিপূর্ণ এবং চরিত্রহনন করে বক্তব্য দেন।

ইত্তেফাক/এসকে