সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

দেশের ৯৭ শতাংশ মানুষ আর্সেনিক ঝুঁকিতে

আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০২৪, ১৩:৪৪

সমুদ্রের পানির উচ্চতা বৃদ্ধের ফলে আর্সেনিক যুক্ত হচ্ছে ভূগর্ভস্থ পানিতে। এতে বাংলাদেশের ভূগর্ভস্থ পানি বিষাক্ত হয়ে উঠেছে। দেশের ৯৭ শতাংশ মানুষ এই পানি পান করছে। পিএলওএস ওয়ান নামের জার্নালে গতকাল বুধবার (১৭ জানুয়ারি) প্রকাশিত এক গবেষণায় এসব তথ্য উঠে এসেছে।

বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন এবং সমুদ্রের উচ্চতা বৃদ্ধির উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। সমুদ্রপৃষ্ঠের কাছাকাছি হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে ২০ শতাংশ ভূখণ্ড পানিতে তলিয়ে যায়। গত কয়েক বছর ধরে এই মাত্রা আরও বেশি। গ্রীষ্মকালীন ঘূর্ণিঝড় উপকূলে প্রায় ৩০ ফুটের কাছাকাছি ঝড় সৃষ্টি করে, যা এই ঝুঁকির অন্যতম কারণ।

গবেষকরা আর্সেনিক নিঃসরণের পেছনের গতিশীলতা বোঝার জন্য অক্সিজেনের ঘনত্ব, পিএইচ এবং তাপমাত্রা পরীক্ষা করার জন্য সারা বাংলাদেশের নলকূপ থেকে পানির নমুনা সংগ্রহ করেছিলেন। গবেষণায় দেখা যায়, সমুদ্রের নোনা পানি মিষ্টি পানির সাথে মিশে গেলে পলি থেকে আর্সেনিক নির্গত হয়, যার কারণে এই সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

১৯৭০ এর দশকের শুরুতে জাতিসংঘ এবং অন্যান্য সংস্থা সারা বাংলাদেশে প্রায় ১ কোটি নলকূপ স্থাপনের একটি বড় প্রকল্প শুরু করে। তার আগে বেশিরভাগ মানুষের জন্য ভূপৃষ্ঠের জলই ছিল পানীয় জলের প্রাথমিক উৎস।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নির্ধারিত পানীয় জলের নিরাপদ সীমা প্রতি লিটারে সর্বোচ্চ ১০ মাইক্রোগ্রাম। বাংলাদেশের ভূগর্ভস্থ পানির প্রায় ৪৯ শতাংশে আর্সেনিকের ঘনত্ব  ওই সীমার বেশি।

এই অবস্থাকে একটি জনস্বাস্থ্য সংকট উল্লেখ করে ভার্মন্টের নরউইচ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. সেথ ফ্রিসবির নেতৃত্বে গবেষকরা বলেন, পানীয় জলে অতিমাত্রার আর্সেনিক  ত্বক, মূত্রাশয়, যকৃত এবং ফুসফুসের ক্যান্সার এবং রক্ত সংক্রমিত রোগের মাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে যা থেকে থেকে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

ইত্তেফাক/এএইচপি