মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

মত প্রকাশ ও চিন্তার স্বাধীনতা ছাড়া বাস করা বৃথা: মাহফুজ আনাম 

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৪, ১৩:০৭

সকল মানুষের মত প্রকাশ ও চিন্তার স্বাধীনতা থাকতে হবে। আমি নিজের মত অন্যের ওপর চাপিয়ে দিতে পারি না। আমার সেই অধিকার নেই। এটি একটি খুব গভীর ব্যক্তি অধিকার। সাংবাদিকতায় মত প্রকাশের স্বাধীনতা উপভোগ করা যায়। অন্য পেশায় সে সুযোগ কম। সাংবাদিকতা মত প্রকাশের স্বাধীনতার একটি দৈনন্দিন উপকরণ। মত প্রকাশ ও চিন্তার স্বাধীনতা ছাড়া বাস করা বৃথা।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (টিএসসিসি) 'শতবর্ষে আবুল মনসুর আহমদের সাংবাদিকতার প্রাসঙ্গিকতা শীর্ষক আলোচনা সভায়' অতিথির বক্তব্যে 'দ্য ডেইলি স্টার' প্রকাশক ও সম্পাদক মাহফুজ আনাম এসব কথা বলেন। এই আলোচনা সভার আয়োজন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ এবং আবুল মনসুর আহমদ সৃতি পরিষদ। 

আলোচনা সভায় বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোস্তাক আহমেদ'র সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাংবাদিক ও গবেষক ড. কাজল রশীদ শাহীন, আলোচনা রেখেছেন দৈনিক সমকাল পত্রিকার লেখক ও প্ল্যানিং এডিটর ফারুক ওয়াসিফ, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক তানভীর আহমদ এবং আবুল মনসুর আহমদ স্মৃতি পরিষদের আহবায়ক ইমরান মাহফুজ।

অধ্যাপক ড. মোজাম্মেল হোসেন বকুল (সাজ্জাদ বকুল)'র সঞ্চালনায় মাহফুজ আনাম আরও বলেন, মত প্রকাশের অধিকার স্বীকৃত। সেখানে তোমার বিচরণ কোথায়? আবার মত প্রকাশের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে আবার সুশিক্ষিত সুচিন্তিত ব্যক্তি হতে হবে। মত প্রকাশের নামে অন্য কাউকে হেয় করা কাম্য নয়। সাংবাদিকতা তখনই সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যায় যখন তা সত্যিকার দায়িত্বশীল মত প্রকাশের সীমানায় থাকে।

স্যোশাল মিডিয়ার সঙ্গে সাংবাদিকতার পার্থক্য বুঝিয়ে তিনি বলেন, স্যোসাল মিডিয়ার মাধ্যমে মত প্রকাশ করা যাচ্ছে। এর মাধ্যমে যোগাযোগ ও তথ্য প্রবাহের ক্ষেত্রে একটা গণতন্ত্রায়ন হয়েছে কিন্তু একইসঙ্গে সমাজকে একটি বিপদের সম্মুখীন করেছে। কারণ সংবাদপত্র যে সংবাদটি প্রকাশ করে তা প্রথমে জার্নালিজমের একটি ধারা ফলো করে। তথ্য সংগ্রহ, যাচাই, রিপোর্টারের লেখা, সাব-এডিটরের যাচাই এবং সবশেষে সম্পাদক সেটা ভালো করে দেখে ছাপায়। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়াতে তা হয় না। ফলে অনেক মিথ্যা মতবাদ ছড়াচ্ছে। 

এসময় সভার অতিথি (২) অর্থনীতিবিদ ও প্রাবন্ধিক সনৎ কুমার সাহা বলেন, আবুল মনসুর আহমেদ আমার কাছে একজন সাংবাদিক হিসেবে যতটুকু পরিচিত ছিলেন তার চেয়ে বেশি পরিচিত ছিলেন একজন লেখক হিসেবে। আবুল মনসুর আহমেদ তার বৈশিষ্ট্য ও নিজস্বতা বজায় রেখেছেন। তিনি যখন সাংবাদিকতায় প্রবেশ করেছেন তখন কাজী নজরুল ইসলামও এই পেশায় প্রবেশ করেছিলেন। আবুল মনসুর আহমেদর জীবনী আমাদের সবার পড়া উচিত। তিনি একজন আদর্শ। তার সময়ে তিনি ছিলেন অতুলনীয় একজন সাংবাদিক।  

ইত্তেফাক/এআই