বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

‘রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ে খেলাধুলা করলে কেউ রেহাই পাবে না’

আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০২৪, ২০:৪৭

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ে কারসাজির বিষয়ে সতর্ক করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী। তিনি বলেন, রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ে খেলাধূলা না করার অনুরোধ করবো। খেলাধুলা করলে কেউ রেহাই পাবেন না।

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেন, বিএনপি বহু চেষ্টা করেও নির্বাচন বন্ধ করতে পারেনি। স্বতন্ত্র প্রার্থীরাও বলেছেন নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে যে কোনো মিছিল, মিটিং করলে কোনো আপত্তি নাই। যদি অশান্ত হন, আগুন সন্ত্রাস করেন, জনগণের অশান্তি হয় এমন কোনো কাজ করলে তা সহ্য করা হবে না। জনগণের শান্তি বিনষ্ট হয় এমন কোন কাজ করতে দেওয়া হবেনা।

তিনি বলেন, রমজানকে সামনে রেখে যেসব লোকেরা কালো ধান্ধায় আছেন, তাদেরকে সতর্ক করতে চাই। কোনো রকমের মজুদদারকে সহ্য করবো না। আমি আজকে বলে দিয়েছি- কোনো জরিমানার ব্যাপার-স্যাপার নাই, সরাসরি কারাগারে পাঠানোর জন্য আমি অনুরোধ করেছি।

মোকতাদির চৌধুরী বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা সচেষ্ট আছেন। আমরাও তার সঙ্গে আছি, সবাই মিলে দেশকে এগিয়ে নিতে চাই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে একটি দেশ দিয়েছেন। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে এই দেশ এগিয়ে চলেছে। জননেত্রী শেখ হাসিন আমাকে মন্ত্রী বানিয়েছেন। আমি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তার প্রতিটা আমি পালন করবো। আগেও আমিও চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারী, ভূমিদস্যু, মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ছিলাম, আজও আছি।

মন্ত্রী বলেন, মাদক ব্যবসায়ীদের বলতে চাই- আপনাদের কারণে যুবসমাজ ধ্বংসের পথে যাচ্ছে। আমি তাদেরকে ধ্বংসের পথে যেতে দিতে পারি না। তাই মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র হেলাল উদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বাদল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ (নাসিরনগর) আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ এ কে একরামুজ্জামান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মঈন উদ্দিন মঈন, মন্ত্রীর সহধর্মিণী মাউশির সাবেক মহাপরিচালক প্রফেসর ফাহিমা খাতুন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাজী হেলাল উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম ভূঁইয়া প্রমুখ।

ইত্তেফাক/এবি