বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম অপ্রস্তুত

না-ও আসতে পারে আর্জেন্টিনা নারী দল

নভেম্বর-ডিসেম্বরে ঢাকায় দুটি প্রীতি ম্যাচ সাবিনাদের বিপক্ষে

আপডেট : ২৯ জানুয়ারি ২০২৪, ১৪:৩২

মেসিরা বাংলাদেশে আসতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে স্টেডিয়াম সংস্কার করতে গিয়ে থেমে যায় আর্জেন্টিনার বাংলাদেশ সফর। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা প্রথম প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের মাটিতে। কিন্তু ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিলাসী সংস্কারের কারণে ভেস্তে যায় মেসিদের আগমন। মেসিরা চীনে গিয়ে খেলেছেন। যারা মেসিদের আনতে বাফুফের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন তারাই জানিয়েছিলেন আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর প্রথম প্রীতি ম্যাচ খেলবে এশিয়ায়। 

বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কারণ বাংলাদেশে আর্জেন্টিনার সমর্থনের সব কথা মেসিদের জানা, আর্জেন্টিনার জানা। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম প্রস্তুত করে দিতে পারেনি ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তরাও মেসি দর্শন করতে পারেননি। এবার আর্জেন্টিনার নারী ফুটবল দলকে বাংলাদেশে আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা নতুন ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপনকে জানিয়েছেন ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ শেষ হবে। যদি তাই হয় তাহলে আর্জেন্টিনা নারী ফুটবল দলের বাংলাদেশ সফরের পরিকল্পনা বাতিল হয়ে যেতে পারে।

বাফুফে আর্জেন্টিনা নারী ফুটবল দলের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলার উদ্যোগ নিয়েছে। আলোচনা চলছে। আরও এক ধাপ আলোচনা এগিয়েছে বলে জানিয়েছেন বাফুফের সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ। তিনি বলেন, ‘আগামী নভেম্বর এবং ডিসেম্বরে দুটি ম্যাচ খেলবে আর্জেন্টিনা নারী দল। এটি হবে বাংলাদেশের সিনিয়র দলের বিপক্ষে। ফিফা উইনডোতে ম্যাচ দুটি হবে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ যদি ১০ গোলও খায় তবুও খেলব আমরা।’

বাফুফের পরিকল্পনা যেভাবে করা হচ্ছে সেটা নির্ভর করছে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম হাতে পাবে কবে। নারী সাফ বাংলাদেশে আয়োজন করতে চেয়েছিল, স্বাগতিক হবার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম না পাওয়া গেলে সাফ বিকল্প কোনো ভেন্যুতে হবে। সেটি কোথায় হবে তা খুঁজে দেখবে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। তার আগে ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন নিজে বিভিন্ন ভেন্যু পরিদর্শনে যেতে চান। দেখে শুনে আরও পরিষ্কার ধারণা নিতে চান তিনি। 

ইত্তেফাক/জেডএইচ