বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

ভারতকে হারিয়ে সাগরিকার বাংলাদেশ ফাইনালে

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:১৬

বারবার ভুল পাস, নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া নেই, বল পেলে সময় নষ্ট করে ফেলা, বলে পেলেই ব্যাকপাস—এসবের মধ্যে খেলতে খেলতে শেষ পর্যন্ত ১-০ গোলে ম্যাচ জয় করে হোটেলে ফিরেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ সাফ নারী ফুটবল দল। সাগরিকার দেওয়া একমাত্র গোলে ভারতকে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ নারী সাফের ফাইনালে উঠে গেল এই টুর্নামেন্টেরই বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ।

চার দেশের লড়াইয়ে বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচ জিতেছে নেপালের বিপক্ষে, ৩-১ গোলে। আর গতকাল কমলাপুর স্টেডিয়ামে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কনফার্ম করে ফেলল জয়নব, সুরমা, মুনকি, পূজা, উহমেলা, ইতি, বন্যাদের বাংলাদেশ। খেলার শেষ বাঁশি বাজার আগ মুহূর্তে সাগরিকা গোল করেন। খেলার স্কোর বোর্ড ৯০ মিনিটে বন্ধ হয়ে গেছে। ইনজুরি টাইমে গোল করেন সাগরিকা। নেপালের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন ঠাকুরগাঁয়ের রাণীশংকৈলের মেয়ে সাগরিকা।

ফাইনালে ভারতের যাওয়াটা অনিশ্চিত হয়ে গেল। মঙ্গলবার ভারতের শেষ ম্যাচ নেপালের বিপক্ষে, আর সন্ধ্যায় বাংলাদেশের ম্যাচ ভুটানের বিপক্ষে। ম্যাচটা হেরে ভারতের কোচ শুক্লা দত্ত বলে গেলেন, তিনি হতাশ নয়। ভালো খেলেছে তার দল। গোল হয়ে যাবে এমন বিপদের কথা কোচ সাইড লাইন থেকে বারবার মাঠের খেলোয়াড়দের বলিছিলেন বলে খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে জানালেন। তিনি বললেন, ‘আমি অনেক জোরে জোরে বলছিলাম ওপর দিয়ে বল উড়ে আসবে, উড়ে আসবে। কিন্তু আমার খেলোয়াড়রা সে কথা শুনতে পারছিল না। এত আওয়াজ হচ্ছিল গ্যালারি থেকে। সেই আওয়াজে আমার কথাই শুনছিলাম না। আমি তো বাংলা বললে হবে না। ওরা হিন্দি ভাষা বোঝে, আমি সেটাও বলেছি। কিন্তু আওয়াজ ততদূর যাচ্ছিল না।’ গোল মিস করেছে ভারত, তারা প্রথমার্ধে একাধিক গোলের সুযোগ পেয়েছিল। সেটা নিয়ে কোচ শুক্লা দত্ত বলেন, ‘চার খানা গোলের সুযোগ ছিল। আমি ওটা নিয়ে বলতে চাই না। মিস করেছি আর কী বলব।’

বাংলাদেশের কোচ সাইফুল বারী টিটুও সংবাদ সম্মেলনে এসে সেটাই জানিয়ে গেলেন। শেষ দিকে টিটু ওপর দিয়ে বল ফেলার জন্য বলছিলেন। সেটাই শেষ পর্যন্ত কাজে লেগেছে। ভারতের কোচ শুক্লা বাংলাদেশের কোনো ফুটবলারদের নিয়ে প্রশংসা করেননি। আলাদাভাবে কোনো কথা বলেননি। তার কথা একটাই বাংলাদেশ ভালো খেলেছে। আমি কাউকে আলাদা করে বলতে পারব না। কোচ টিটু অকৃপণভাবে জানিয়ে গেলেন ভারতের কোন ফুটবলাররা অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছেন। নেহা, পূজা, শিবানী দেবী, সুলঞ্জনা রাউল সত্যি দারুণ খেলেছেন। টিটু ম্যাচ জিতলেও দলের প্রথমার্ধে ভালো খেলেনি, আমাদের মুনকি, সাগরিকা, রুমা দারুণ খেলেছে।

ইত্তেফাক/এএম