বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগ দিলেন জেলেনস্কি

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭:২৭

সাবেক সেনাপ্রধানকে বরখাস্ত করার পরেই নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগ দিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। দেশটির সশস্ত্র বাহিনীর নতুন প্রধান হিসেবে ওলেকসান্দর সিরস্কিকে নিয়োগ দিয়েছেন তিনি। খবর রয়টার্স।

এর আগে তিনি জেনারেল ভ্যালেরি জালুঝনিকে সেনাপ্রধানের পদ থেকে বরখাস্ত করেন। দুই বছর ইউক্রেনের সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন জালুঝনি।

বৃহস্পতিবার মাইক্রো ব্লগিং সাইট এক্সে দেওয়া এক পোস্টে জালুঝনিকে ধন্যবাদ জানিয়ে জেলেনস্কি বলেন, সামরিক নেতৃত্বে পরিবর্তন আনার সময় হয়েছিল।

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের প্রায় দুবছর হতে চলল। ঠিক এ সময়টায় এসে দেশের ‘সামরিক কৌশলে’ পরিবর্তন আনা প্রয়োজন বলে মনে করেন জালুঝনি।

সেনাপ্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর তিনি বলেন, ‘২০২২ সালের কাজ আর ২০২৪ সালের কাজের মধ্যে পার্থক্য আছে। জয়ী হতে হলে প্রত্যেককে অবশ্যই বদলাতে হবে এবং নতুন বাস্তবতার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হবে।

কে এই নতুন সেনাপ্রধান

সিরস্কি ১৯৬৫ সালের জুলাই মাসে রাশিয়ার ভ্লাদিমির অঞ্চলে জন্মগ্রহণ করেন। অঞ্চলটি তখন সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল। তিনি ১৯৮০ সাল থেকে ইউক্রেনে বসবাস করছেন। ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীতে তার বয়সের অনেক লোকের মতো তিনিও মস্কোর উচ্চ সামরিক কমান্ড স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। তার সঙ্গের অনেকেই তখন থেকে রুশ কমান্ডার হয়েছেন।

১৯৮৬ সালে স্নাতক সম্পন্ন করেন সিরস্কি এবং সোভিয়েত আর্টিলারি কর্পসে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেছেন। কিছু সামরিক বিশ্লেষকের মতে, তার যুদ্ধক্ষেত্রের কৌশলগুলোতে সোভিয়েত আমলের প্রশিক্ষণের প্রতিফলন দেখা যায়।

সিরস্কি ২০১৯ সালে ইউক্রেনের স্থল বাহিনীর প্রধান হয়েছিলেন। তিনি এর আগে ২০১৪ সালে শুরু হওয়া পূর্ব দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চলে মস্কো-সমর্থিত বিদ্রোহের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত ইউক্রেনীয় সেনাদের কমান্ডার ছিলেন। তাকে ‘স্নো লেপার্ড’ বলে ডাকা হয়।

রাশিয়ার পূর্ণ মাত্রার আক্রমণের সময় ইউক্রেনের সবচেয়ে বড় জয়গুলোর মধ্যে কয়েকটি ছিল সিরস্কির তত্ত্বাবধানে। তিনি যুদ্ধের প্রথম মাসগুলোতে রাজধানী কিয়েভের সফল প্রতিরক্ষার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

২০২২ সালের এপ্রিল মাসে দেশের সর্বোচ্চ সম্মানজনক ‘ইউক্রেনের হিরো’ হিসেবে মনোনীত হন তিনি। একই বছরের জুলাই মাসে সিরস্কি পাল্টা আক্রমণের পরিকল্পনা করেন এবং তা কার্যকরও করেছিলেন। এর ফলে রুশ সেনারা শহর ছেড়ে দূরে যেতে বাধ্য হয়। সাফল্য হিসেবে ইউক্রেন সেনারা খারকিভ এবং পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্বে বেশ কিছু জমি পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

সিরস্কি বলেছেন, তার অগ্রাধিকার হল সেনাদের মনোবল যাদের তিনি নিয়মিত ফ্রন্ট লাইনে পাঠাচ্ছেন। নতুন এই সেনাপ্রধান পশ্চিমা মিডিয়াকে বলেছেন, তিনি রাতে সাড়ে চার ঘণ্টা ঘুমান এবং জিমে গিয়ে রিল্যাক্স করেন। বিবাহিত এবং তার দুই ছেলে আছে।

ইত্তেফাক/এসএটি