বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

মনোমালিন্য দূর ও স্থানীয় নির্বাচনে এমপিদের ভূমিকা নির্ধারিত হবে

শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা আজ

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০০:২৫

আওয়ামী লীগের ‘বিশেষ বর্ধিত সভা’ আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জানা গেছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মনোমালিন্য দূর করার নির্দেশনা দেবেন শেখ হাসিনা। কারণ নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং তাদের সমর্থকদের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণে তৃণমূলে সংঘাত বেড়েছে। এ নিয়ে চিন্তিত দলটি। এছাড়া আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে এমপিদের ভূমিকা কী হবে সেই বিষয়েও নির্দেশনা দেওয়া হবে। বিএনপি বড় ধরনের কোনো কর্মসূচি নিলে তা মোকাবিলায় করণীয় নিয়েও দিকনির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী। 

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আজ বিশেষ বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটি, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যবৃন্দ, জেলা/মহানগর ও উপজেলা/থানা/পৌর (জেলা সদরে অবস্থিত পৌরসভা) আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা, জাতীয় সংসদের দলীয় ও স্বতন্ত্র সদস্যবৃন্দ, জেলা পরিষদ ও উপজেলা পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যানরা, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার দলীয় মেয়ররা এবং সহযোগী সংগঠনসমূহের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত থাকবেন।

এদিকে আজ অনুষ্ঠেয় আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেন, ‘নির্বাচনি ইশতেহার বাস্তবায়নের দলের সুদৃঢ় ঐক্যের দরকার। কৌশলগত কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচন করেছে। যে নির্বাচনে ৬২ জন স্বতন্ত্র নির্বাচিত হয়েছেন। তারাও কিন্তু আওয়ামী লীগের। অনেকে আওয়ামী লীগের পদধারীও আছে। নির্বাচনে নিজেদের মধ্যে কিছুটা ভুল বোঝাবুঝি, মতবিরোধ, দ্বন্দ্ব, সংঘাতের মতো দুঃখজনক ঘটনাও ঘটেছে। সামনে উপজেলা নির্বাচন, মেয়র নির্বাচন, পর্যায়ক্রমে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। দলের অভ্যন্তরে যে অন্তর্কলহ, দ্বন্দ্ব এসব মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাদের উপজেলা নির্বাচন, মেয়র নির্বাচনে যেতে হবে। নির্বাচন ঘিরে মনোমালিন্য যেন কোনো সংঘাত সৃষ্টি না করে, সেজন্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। সবার মধ্যে ঐক্যবদ্ধ আবহ তৈরির জন্য এই বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়েছে।’ তৃণমূলের নেতাদের অভিযোগ, নির্বাচনি দ্বন্দ্বের জেরে বর্তমানে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা উপেক্ষা করে বহিষ্কার, নিজ দলের নেতাকর্মীদের সম্পত্তি দখল, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘর ভাঙচুর, মারধর, লুটপাট—এমনকি কিছু জায়গায় প্রশাসন দিয়ে হয়রানি করার ঘটনাও ঘটছে।

বিশেষ বর্ধিত সভা উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগরের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্দেশনা অনুযায়ী গণভবনে অনুষ্ঠিতব্য বিশেষ বর্ধিত সভায় আমন্ত্রিত নেতৃবৃন্দ বিজয় সরণি দিয়ে জাতীয় সংসদের লেক রোড হয়ে গণভবনের ১ নম্বর গেইট দিয়ে প্রবেশ করবেন। সভায় অংশগ্রহণকারীদের ব্যক্তিগত গাড়ি ডিএমপি পুলিশের নির্দেশনা অনুযায়ী নির্ধারিত স্থানে (বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র সংলগ্ন মাঠ) পার্কিং করতে হবে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের এই নির্দেশনা মেনে চলার জন্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

ইত্তেফাক/এসটিএম