বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

‘অনস্টেজ মানুষের সাথে সংযোগ তৈরি করতে ভালবাসি’

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:৩০

‘আট প্রহরের নজরুল’ শিরোনামের এক ভিন্নধারার আয়োজন অনুষ্ঠিত হলো শিল্পকলা একাডেমিতে। নজরুলের গানের সাথে পাঠ করলেন শিল্পী আপন আহসান। সে প্রসঙ্গেই কথা বললেন তার সাংস্কৃতিক চর্চা ও সাম্প্রতিক কাজ নিয়ে। লিখেছেন তানভীর তারেক।

এ ধরণের অনুষ্ঠানে আপনার কবিতা বা গান বাছাইয়ের কাজটি কিভাবে করেন?

এটা আসলে খুবই কঠিন কাজ মনে হয় আমার কাছে। তার উপরে নজরুল। আমি নজরুলের প্রায় ১৭ খন্ড রিসার্চ করে এই পাঠের স্ক্রিপ্টটা তৈরি করেছি। আর নিরুপমা রহমান তো খুবই গুণী একজন শিল্পী। তাই এই যুগলবন্দি ভাল লেগেছে আমার।

আপনি একজন পুরোদস্তুর মঞ্চকর্মী, অভিনেতা, বাচিক শিল্পী পাশাপাশি একজন সফল কর্পোরেট। এই একাধিক স্বত্ত্বার সংঘাত কিভাবে মেটান—

এটা তো মেটানো মুশকিল। তবে নিজের জীবিকার টানে আমাকে কর্পোরেট হয়ে থাকতে হয়। কারণ আমাদের সাংস্কৃতিক চর্চার কোনোটিই তো মূলত পেশাদারিত্বের জায়গায় পৌঁছায়নি। যত যাই বলি না কেন এটাই বাস্তবতা। যদি তাই হতো- তাহলে আমি একটা জীবন মঞ্চেই কাটিয়ে দিতাম। নয়ত আমার সকল সৃজনশীল চর্চা দিয়েই কাটাতে পারতাম। কিন্তু তা তো পারিনা বলেই সুটেড বুটেড হয়ে কর্পোরেট হয়ে থাকতে হয়।

থিয়েটার স্কুলের সাথে আপনার জার্ণিটা দীর্ঘদিনের। স্কুলটি নাট্যশিক্ষায় ৩৪ বছর পূর্ণ করলো। কী বলতে চান।

এটা এক দারুণ ভাল লাগার জায়গা। আমি ছিলাম এই স্কুলের নবম ব্যাচের ছাত্র। আমার রেজাল্ট খুবই ভাল হয়েছিল। এরপর থেকে স্কুলটির সাথে জড়িত। এ ধরনের স্কুল এত দীর্ঘসময় টিকিয়ে রাখাটা কিন্তু মুশকিল। সেটি আমরা করতে পেরেছি।

আপনার দীর্ঘ এই মঞ্চের অভিজ্ঞতায় একক শো করার ইচ্ছে নেই। কবে পাবো আপনাকে?

খুবই ইচ্ছে। ইচ্ছে আছে এবছরই একটা শো করার। কারণ বয়স আর আয়ুস্কালের ব্যবধান তো জানে না মানুষ। সে হিসেব করলে তো আমার জীবনতো প্রায় খরচের খাতাতেই চলে এলো। তাই এবছরই প্রস্তুতি নিচ্ছি।

উপস্থাপনা না আবৃত্তি শিল্প কোনটা আপনাকে বেশি টানে?

এক্ষেত্রে উপস্থাপনার কথাই বলবো। কারণ আমি অনস্টেজ মানুষের সাথে সংযোগ তৈরি করতে ভালবাসি। এই যোগাযোগের কাজটা আমার ভীষণ প্রিয়। আমার করতেও ভাল লাগে। তাই বলে আবৃত্তি আমার ভাল লাগে না, তা বলছি না। আবৃত্তি শিল্পটা একটা ফাইনেস্ট আর্ট। কিন্তু কেউ কেউ এটাকে সহজভাবে নিয়ে গুরুত্ব না চেষ্টা করে, এটা ঠিক না।

সম্প্রতি আপনাদেরই কলিগ অভিনেতা আহমেদ রুবেল মারা গেল। কি বলতে চান এই অভিনয় শিল্পীকে নিয়ে—

কিছু কিছু মানুষ রয়েছেন। কোনো কোনো শিল্পী আছেন, যাদের সাথে দীর্ঘদিন দেখা না করেও এটা আত্মার যোগ হয়ে যায়। মনে হয়, তাকে আমার অনেকদিনের জানাশোনা। এই বন্ধনের টান কিন্তু একজন শিল্পী তার স্বত্ত্বা দিয়ে তৈরি করে। আহমেদ রুবেল তেমন একজন শিল্পী। আহমেদ রুবেলের ক্যারিয়ার খুবই গোছানো। অর্থাত্ কার ক্যারিয়ারগ্রাফে কোনো ধরণের মানহীন কাজ নেই। কাজের ক্ষেত্রে তিনি কোনো আপোষ করেননি। এটা সকলে পারেন না। আহমেদ রুবেল পেরেছেন।

ইত্তেফাক/এএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন