রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

সকলের একই প্রশ্ন ‘শাহরুখ খান কবে আসবেন ঢাকায়?’

আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০০

এ বছর দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকায় আসবেন শাহরুখ খান। এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে একাধিক খবর ছড়ালেও নানান বিভ্রান্তি তৈরি হয়। আদৌ কী আসবেন এই বলিউড সুপারস্টার? কারো কারো মনে সংশয়!

অন্তরশোবিজ এর আয়োজনেই শাহরুখ আসছেন- এটুকু নিশ্চিত হওয়া গেছে। তারাই প্রথম বাংলাদেশে শাহরুখ খানের কনসার্ট করেছিলেন। কিন্তু কবে নাগাদ আসবেন তা নিয়ে জোর গুঞ্জন। অফিশিয়ালি শাহরুখের টীমকে কী জানানো হয়েছে, নাকি পুরোটাই এখনও মৌখিক। এসব প্রশ্নে অন্তরশোবিজের কর্ণধার স্বপন চৌধুরীকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি আজ অব্দি কোনো কিছু বলে, সেটা হয়নি এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। এমনকি আদনান সামিকে ঢাকায় নিয়ে আসার পরও সেই কনসার্ট না হওয়ায়, পরে আবারও তাকে এনেছি। পুরো ইভেন্ট লস দিয়ে হলেও এনেছিলাম কমিটমেন্ট রক্ষা করার জন্য। তাই শাহরুখও আসবেন এবং এবছরেই। আমরা ঈদেই এর বিস্তারিত সব জানাবো। এখন আপাতত আমাদের ছবি ‘অপারেশন জ্যাকপট’ নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চাই।’

উল্লেখ্য, অফিশিয়ালি এবছরের শেষ দিকে ঢাকায় আসবেন এটুকু নিশ্চিত করেছে নাকি শাহরুখের রেড চিলি এন্টারটেইনমেন্ট। তবে তারা ডেটটি এখনও চূড়ান্ত করেননি। আর চুক্তি অনুযায়ী শাহরুখের পারিশ্রমিক কত হবে, তা নিয়ে কিছুই জানাতে নারাজ আয়োজক কর্তৃপক্ষ। দেড়যুগ আগে এসেছিলেন শাহরুখ। সেই দেড়যুগ আগের শাহরুখ আর এবারের শাহরুখের ব্যপ্তি আরও কয়েকগুণ। সেক্ষেত্রে এই সুপারস্টারের পারিশ্রমিক কত হবে সেটিও অনেকের প্রশ্ন। তবে এটুকু নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে যে ২০২৪ এর শেষ দিকে ঢাকা একক শো করবেন শাহরুখ। বরাবরের মতো শাহরুখের সাথে চলতি সময়ের কজন নায়িকাও আসবেন। এর আগেরবারে যেমন এসেছিলেন রানী মুখার্জীসহ বেশ ক’জন। আয়োজক অন্তরশোবিজ বলছেন, আমি এখনও শাহরুখ নিয়ে অফিসিয়ালি কোনো ঘোষণা দিতে চাই না। কারণ আমি এখন পুরোপুরি ফোকাস দিতে চাই অপারেশন জ্যাকপট মুভিটা নিয়ে। সেটি নিয়েই মানুষের কৌতুহল বিরাজমান থাকুক।’

ঈদের আগেই শাহরুখের আসার তারিখ, ইভেন্ট প্ল্যান নিয়ে বিস্তারিত জানান দেবে অন্তর শোবিজ। বর্তমানে ‘অপারেশন জ্যাকপট’ মুভির টানা শুটিং চলছে গাজীপুরের বেশ কয়েকটি লোকেশনে। পুরো ছবির টীম সেখানেই অবস্থান করছেন। একটানা দুই সপ্তাহ সেখানে শুটিং শেষ করে তারা আসবেন ঢাকার বিভিন্ন ক্যান্টনমেন্ট এলাকার শুটিংয়ে। যেখানে হেলিকপ্টার, ট্যাংকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিকোয়েন্সের দৃশ্য ধারণ করা হবে।

ইত্তেফাক/এমএএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন