বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

প্রেম কেন রাখে গোপন

আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১:১৪

প্রেম, প্রণয়, পরিণয়—তারকাদের ক্ষেত্রে এই শব্দগুলোতে কেমন যেন গোপন গোপন গন্ধ মেশানো থাকে। ভাব-বিনিময়ের পর থেকে শুরু হয়, কেউ কেউ বিয়ের পরও চালিয়ে যান গোপনীয়তার ভণিতা। শোবিজ অঙ্গনে লুকিয়ে প্রেম করাটাই এখন রেওয়াজ। কিন্তু কেন? ক্যারিয়ারে ভাটা পড়ার ভয় নাকি গুঞ্জন-সংবাদে আলোচনায় থাকার কৌশল? অথবা ব্যক্তিগত কারণ, অসম প্রণয়, বহু প্রণয় ইত্যাদি নানা কারণেও হতে পারে!

শোবিজে এখন কোনো অভিনয়শিল্পী; বিশেষত কোন অভিনেত্রী প্রেম করছেন না? সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। সর্বশেষ বিদ্যা সিনহা মিমের ছয় বছর ও তাসনিয়া ফারিণের সাড়ে ৮ বছর প্রেম প্রণয়ে প্রকাশ্যে আসার খবর বেশ অবাক করেছে তাদের ভক্তদের।

প্রেম চলাকালে অন্য প্রেমের গুঞ্জন

বিয়ের আগে বাপ্পি চৌধুরী, তাহসান খান ও এক গায়কের সঙ্গে সম্পর্কের গুঞ্জন ছড়ায়, তখন বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হয় বিদ্যা সিনহা সাহা মিমকে। সেসময়ে একটি মজার ঘটনাও শেয়ার করেন এই অভিনেত্রী। মিম বলেন, ‘তাহসান ভাই কিন্তু জানতেন আমার সম্পর্কের কথা। এজন্য তিনি মাঝেমধ্যে বলতেন, ইশ, মানুষজন এমন সব নিউজ করে, ইচ্ছে করে বলে দিই যে, তোমার বয়ফ্রেন্ড আছে।’

তাহসান খানের সঙ্গে তাসনিয়া ফারিণেরও প্রেমের গুঞ্জন ছিল। বিষয়টি নিয়ে বিরক্ত ছিলেন দুজনই। অথচ অভিনয়ে নাম লেখানোর আগে, তারকাখ্যাতি পাওয়ার বহু আগে স্বামী শেখ রেজওয়ানের সঙ্গে হূদয়ের লেনদেন করেন ফারিণ। শোবিজে নানা গুঞ্জনের মধ্যেও তিনি প্রেমকে আড়ালেই রেখেছিলেন।

কখনো কখনো পরিণয় না হয়েও থমকে যায়

গান, আইটেম সং কিংবা অভিনয়ে দুই বাংলায় বেশ জনপ্রিয় নুসরাত ফারিয়া। ২০২০ সালের ২১ মার্চ রনি রিয়াদ রশিদ নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে আংটি বদল করেছিলেন তিনি। সেই সময়ে জানিয়েছিলেন ‘তাদের ১০ বছরের সম্পর্ক!’ যদিও সেই সম্পর্ক বিয়েতে রূপ নেওয়ার আগেই ভেঙে যায়।

নুসরাত ফারিয়া বলেন, ‘আমি প্রথম প্রেম করেছিলাম ১৫ কিংবা ১৬ বছর বয়সে। ওই সময় থেকে ২০২২ সালের ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত, আমি আমার জীবনে একদিনও সিঙ্গেল ছিলাম না। কিন্তু প্রেমকে বরাবরই প্রেমের জায়গায় রেখেছি। তবে বিয়ে এমন একটি সিদ্ধান্ত, যেটা খুব ভেবে-চিন্তে, সচেতনভাবে নিতে হয়। সত্যি বলতে, আশপাশে এত বেশি বিচ্ছেদ দেখি, তাতে একপ্রকার ভয় পাই।’

প্রকাশ্যে না আনার প্রশ্নে এক উত্তর

প্রেমের সম্পর্ক প্রকাশ্যে না আনার প্রশ্নে প্রায় সবারই একটি উত্তর প্রস্তুত থাকে—‘ব্যক্তিগত জীবন আড়ালে রাখতে পছন্দ করি।’ তবে আড়ালে রাখার প্রসঙ্গে মিম বলেন, ‘আমি নিজেই সম্পর্ক একান্ত রাখার জন্য অনেক সেক্রিফাইস করেছি। প্রেম প্রকাশ্যে আনার সঙ্গে ক্যারিয়ারের কোনো সম্পর্ক নেই।’ এদিকে ফারিণ জানান, ‘এসব নিয়ে কথা বললে আরো বেশি গুঞ্জন অকারণেই সামনে আসে। তাই এদিকে মনোযোগ না দিয়ে বরাবর কাজকেই সামনে এনেছি।’

কেউ কেউ ক্যারিয়ারের জন্য বিসর্জন দিয়েছেন প্রেম কিংবা ভালোবাসাও। সদ্য বিয়ে করা ছোটপর্দার অভিনেতা ফারহান আহমেদ জোভান তার অন্যতম উদাহরণ। জোভান বলেন, ‘২০১৪ সালে আমার একটা ভালো অবস্থান তৈরি হচ্ছিল। সেই সময় আমি একটা মেয়েকে ভালোবাসতাম, আর অভিনয় চালিয়ে যাওয়ার জন্য সেই ভালোবাসা সেক্রিফাইস করতে হয়েছে।’

পুরোনো প্রেক্ষাপট

শুধু এই প্রজন্মই নয়, লুকোচুরির প্রবণতা একটু পিছনে তাকালেও দেখা যায়। এক সময়ে জনপ্রিয় তারকা জুটি মৌসুমী-ওমর সানি’র প্রেমের ঘটনা হরহামেশাই পত্র-পত্রিকায় আসত। শোনা যেত তাদের গোপন বিয়ের কথাও। হঠাত্ একটি পাঁচ তারকা হোটেলে বিয়ের কথা প্রকাশ করেন তারা। জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূরের প্রেম-বিয়ে নিয়ে অনেক লুকোচুরি হয়েছে। তাকে নিয়ে গুজব ছড়িয়েছে তার সমসাময়িক একাধিক নায়কদের সঙ্গে।

নায়ক ফেরদৌসও অনেকটা গোপনেই তার বিয়ের কাজটা সেরে ফেললেও দু’/একদিনের মধ্যেই তা প্রকাশ পেয়ে যায় এবং তিনি তা স্বীকার করেও নেন। এমনকি শাকিব খানের মতো প্রবল জনপ্রিয় একজন তারকার ক্ষেত্রে প্রেমের পর বিয়ে করে প্রথমটি ৯ বছর, পরেরটি ৫ বছর গোপন রাখা সহজ কথা নয়। সহজ নয় বাচ্চার কথাও গোপন রাখা। কিন্তু সম্ভব হয়েছে সবই।

ছোটপর্দার দিকে তাকালে অনেক চিত্রই দেখা যায়। বিয়ের চার বছর পর নিজেদের বিয়ের খবর প্রকাশ করেন অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম ও পরিচালক শিহাব শাহীন। বারবার প্রেমের কথা অস্বীকার করলেও ২০১৫ সালের ৭ জানুয়ারি বিয়ে করেন নিলয় আলমগীর ও শখ। এছাড়া সোশ্যাল মিডিয়ায় শবনম ফারিয়া ও হারুনুর রশীদ অপুর কিছু ছবি ছড়িয়ে পড়ে। সে সময় বিয়ের কথা অস্বীকার করেন ফারিয়া। তবে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে বিয়ের পর তাদের সংসার টিকেছিল এক বছর ৯ মাস।

প্রেমে গোপনীয়তার সঙ্গে ক্যারিয়ারের সম্পর্ক

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনপ্রিয় এক চিত্রনায়িকার মতে, ‘নায়ক-নায়িকা যদি বিবাহিত হন তবে তাদের প্রতি ভক্তদের আকর্ষণ কমে যায়, এমন ধারণা অনেকের।’ আবার অনেক নায়িকাই ভাবেন—প্রেম বা বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আনলে প্রযোজক, পরিচালকরা হয়তো মুখ ফিরিয়ে নেবেন। প্রেম, বিয়ে বা বিচ্ছেদের প্রসঙ্গে সামনে এলে যে ভক্তরা মুখ ফিরিয়ে নেন—এমন ধারণা ভুল প্রমাণ করেছেন শাকিব খান, জয়া আহসান, পূর্ণিমা, আরেফিন শুভরা। সালমান শাহ্ খুব দারুণ উদাহরণ হতে পারেন। অসংখ্য তরুণীর হার্টথ্রব এই ক্ষণজন্মা নায়কও ক্যারিয়ারের শুরুতেই ছিলেন বিবাহিত। এই বিবাহিত নায়কের জন্যই আত্মহত্যা করেছিলেন বেশ কয়েকজন তরুণী তার মৃত্যুর সংবাদে।

এমনকি ক্যারিয়ারে ভাটা পড়ার ভাবনাও বেশ সেকেলে। কিংবদন্তি নায়করাজ রাজ্জাক যখন ক্যারিয়ার শুরু করেন তখন তিনি শুধু বিবাহিতই নন, ছিলেন এক সন্তানের জনকও। এই তালিকায় আলমগীর, বুলবুল আহমেদ, সোহেল রানা, ফারুক, জাফর ইকবালের নাম উল্লেখযোগ্য। ব্যতিক্রম নন নায়িকারাও। বিবাহিত হয়েও রোমান্টিক নায়িকা হিসেবে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে ছিলেন কবরী। বিশেষ করে রাজ্জাকের সঙ্গে জুটি হয়ে অভিনয় করেন একের পর এক ছবিতে। যার প্রায় প্রতিটিই ব্যবসা সফল হয়। এছাড়া শবনম, শাবানা, ববিতা, দিতিসহ অনেকেই প্রকাশ্যে বিয়ে করেও কী দারুণ ক্যারিয়ার গড়েছেন!

ইত্তেফাক/এএম