সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

গাজায় যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে তৃতীয়বারের মতো ভেটো দিলো যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭:১২

গাজায় যুদ্ধবিরতির জন্য খসড়া প্রস্তাব উপস্থাপন করেছিল নিরাপত্তা পরিষদ। মঙ্গলবার এই প্রস্তাবে ফের ভেটো দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ নিয়ে তৃতীয়বারে মতো যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে ভেটো দিলো দেশটি।

যুক্তরাষ্ট্রের ভেটোর কারণে বাধাগ্রস্ত হয়েছে গাজায় মানবিক যুদ্ধবিরতির দাবি। বিপরীতে নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যকে হামাসের হাতে বন্দী জিম্মিদের মুক্তির বিনিময়ে অস্থায়ী যুদ্ধবিরতিতে যাওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে।

আলজেরিয়ার উত্থাপিত এই খসড়া প্রস্তাবের পক্ষে মঙ্গলবার ভোট দিয়েছে ১৩ কাউন্সিল সদস্য। ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিল যুক্তরাজ্য। ৭ অক্টোবর থেকে ইসরায়েল-হামাসের যুদ্ধ শুরুর পর এপর্যন্ত তিনবার যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে আর তিনবারই ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

জাতিসংঘে আলজেরিয়ার রাষ্ট্রদূত ওমর বেন্দজামা ভোটের আগে কাউন্সিলকে বলেন, ‘এই খসড়া প্রস্তাবের পক্ষে একটি ভোট দেওয়া মানে ফিলিস্তিনিদের জীবনের প্রতি, অধিকারের প্রতি সমর্থন। বিপরীতে, এর বিরুদ্ধে ভোট দেওয়া মানে তাদের ওপর প্রদত্ত নৃশংস সহিংসতা ও সম্মিলিত শাস্তির অনুমোদন।’

জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত লিন্ডা থমাস-গ্রিনফিল্ড শনিবার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্র, মিসর, ইসরায়েল ও কাতারের মধ্যস্থতায় যুদ্ধবিরতি ও হামাসের হাতে জিম্মিদের মুক্তি নিয়ে যে আলোচনা চলছিল সেটি বিঘ্ন হতে পারে। এই উদ্বেগের কারণেই খসড়া প্রস্তাবে ভেটো দেবে যুক্তরাষ্ট্র।

থমাস-গ্রিনফিল্ড ভোটের আগে কাউন্সিলে বলেন, ‘হামাসের সঙ্গে জিম্মিদের মুক্তি সংক্রান্ত কোনো চুক্তি ছাড়া যদি যুদ্ধবিরতিতে যাওয়া হয় তবে এই অঞ্চলে টেকসই কোনো শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে না। বরং হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে সংঘাত আরও প্রসারিত হতে পারে।’

যুদ্ধবিরতির জন্য আলজেরিয়া যে খসড়া প্রস্তাব উত্থাপন করেছিল সেটিতে জিম্মিদের মুক্তি সংক্রান্ত কোনো চুক্তি ছিলো না। প্রস্তাবে শুধু পৃথকভাবে দ্রুত মানবিক যুদ্ধবিরতি ও জিম্মিদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনি জাতিসংঘের দূত রিয়াদ মনসুর কাউন্সিলকে বলেছেন, ‘এই ভেটো দিয়ে ইসরায়েলকে আজ যে বার্তা দেওয়া হয়েছে তা হল তারা গাজায় হত্যা করা অব্যাহত রাখতে পারবে।’

ইত্তেফাক/এসএটি