সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

কাপ্তাই লেকে পানিস্বল্পতায় কমেছে বিদ্যুৎ উৎপাদন

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০২:০০

কাপ্তাইয়ে অবস্থিত কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎকেন্দ্রে ভয়াবহ পানি সংকটে পড়েছে। পানির অভাবে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সবগুলো ইউনিট একযোগে চালানো সম্ভব হচ্ছে না বলে জানা গেছে। এর ফলে বিদ্যুৎ উৎপাদন উল্লেখযোগ্য হারে কমে গেছে। পানি সংকট আরও বৃদ্ধি পেলে বিদ্যুৎ উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী এটিএম আব্দুজ্জাহের কাপ্তাই লেকে পানি আশঙ্কাজনক পরিমাণে কম রয়েছে বলেও স্বীকার করেন।

গত মঙ্গলবার প্রকৌশলী আব্দুজ্জাহের জানান, কাপ্তাই বিদ্যুৎকেন্দ্রে পাঁচটি জেনারেটরের সবগুলো বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপাদনের উপযোগী রয়েছে। কিন্তু লেকে পানি কম থাকায় শুধু একটি ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদনে সচল রাখা হয়েছে। কেন্দ্রের ১ নাম্বার ইউনিটটি এখন কোনোমতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে রয়েছে। এই ইউনিট থেকে ৪০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে, যার পুরোটাই জাতীয় গ্রিডে সঞ্চালন করা হচ্ছে।

প্রকৌশলী এটিএম আব্দুজ্জাহের বলেন, কাপ্তাই লেকে এখন (২০ ফেব্রুয়ারি) পানি রয়েছে ৮৪.০৫ ফুট মিন সি (এমএসএল) লেভেল। কিন্তু রুলকার্ভ অনুযায়ী এখন লেকে পানি থাকার কথা ৯৪ ফুট এমএসএল। অর্থাৎ পরিমাপের চেয়ে কাপ্তাই লেকে এখন ১০ ফুট পানি কম রয়েছে। সহসা বৃষ্টি না হলে কাপ্তাই লেকের পানি আরও কমে যাওয়ারও আশঙ্কা করছেন তিনি।

কাপ্তাই লেকের পানি দ্রুত কমে যাচ্ছে কেন জানতে চাইলে কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎকেন্দ্রে একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কাপ্তাই লেকের পানি দিয়ে শুধু কর্ণফুলী পানি বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিদ্যুৎ উৎপাদনের কথা ছিল। কিন্তু বর্তমানে রাঙ্গামাটি শহরের সকল বাসাবাড়ি, ছোট ছোট কারখানা এমনকি সরকারি অনেক দপ্তরেও মোটর বসিয়ে লেকের পানি টেনে নেওয়া হচ্ছে। এসব কারণে কাপ্তাই লেকের পানি দ্রুত কমে যাচ্ছে। ঐ কর্মকর্তা বলেন, ‘কৃত্রিম এই জালাধারের ওপর সবাই যদি নির্ভর হয়ে পড়েন, তাহলে চরম ক্ষতির মুখে পড়বে বিদ্যুৎ উৎপাদন। কেননা স্বল্পখরচে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য কাপ্তাই হ্রদে পানির বিকল্প নেই।’

ইত্তেফাক/এমএএম